বাসস:

দেশের ১ হাজার ২২২ জন শহিদ বুদ্ধিজীবীর নাম তালিকাভূক্তির নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

রোববার (১৪ডিসেম্বর) শহিদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা প্রণয়ন সংক্রান্ত কমিটির প্রথম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষের সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় ১৯৭২ সালে প্রকাশিত ১ হাজার ৭০ জন এবং ডাক বিভাগ কর্তৃক বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত ১৫২ জন বুদ্ধিজীবীর নাম প্রথম ধাপে তালিকাভুক্তির নীতিগত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে আজ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এ সময় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. শহীদুল হক ভূঁঞা, উপসচিব রথীন্দ্র নাথ দত্ত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মুনতাসির মামুন, ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির, গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘরের ট্রাস্টি ড. চৌধুরী শহীদ কাদের, নিপসম’র পরিচালক ড. বায়েজিদ খুরশীদ রিয়াজ, চলচিত্র নির্মাতা ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, বীর মুক্তিযোদ্ধা লে. কর্ণেল কাজী সাজ্জাদ জহির, বীরপ্রতীক উপস্থিত ছিলেন ।

গত ১৯ নভেম্বর শহিদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা প্রণয়ন সংক্রান্ত ১১ সদস্যদের কমিটি গঠন করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

কমিটি মুক্তিযুদ্ধকালীন শহিদদের মধ্যে কারা শহিদ বুদ্ধিজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হবেন তার সংজ্ঞা নির্ধারণ করবে।

বিভিন্ন গবেষণা গ্রন্থ, পত্রিকা কাটিং, টিভি রিপোর্ট, অন্যান্য সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য যাচাই বাছাই করে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের তালিকা প্রস্তুত করবে। এছাড়া কমিটি বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগ/সংস্থা/জেলা /উপজেলা ও অন্যান্য সূত্র থেকে প্রাপ্ত ব্যক্তি/ব্যক্তিবর্গের আবেদন যাচাই বাছাই করে শহিদ বুদ্ধিজীবী তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তির সুপারিশ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *