নিজস্ব প্রতিবেদক:

সম্প্রতি বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহম্মেদ খানকে যে গাড়িটি থামানোর অপরাধে রাজধানীর রাস্তায় জনসম্মুখে মারধর করা হয়েছিল এবার জানাগেল সেই গাড়িটির রয়েছে ১৫ বছরের টাক্স ফাঁকির অভিযোগ।

যার ফলে আইন শৃঙ্খলা বাহীনির চোখ ফাঁকি দিতে গাড়িটিতে ‘সংসদ সদস্য’ স্টিকার ব্যবহার করে রাস্তায় বের হতেন ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী সেলিমের পরিবারের সদস্যরা।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) যানবাহনের নিবন্ধন ও ফিটনেস সনদ দেয়ার পাশাপাশি যানবাহনের রোড ট্যাক্সও আদায় করে।গাড়িটি নিয়ে বিআরটিএর তথ্য অনুযায়ী, ১০ বছর আগ থেকে অর্থাৎ ২০১০ সাল থেকে এই গাড়ির ফিটনেস সনদ হালনাগাদ নেই। এমনকি ২০০৫ সাল থেকে রোড ট্যাক্সও দেওয়া হয়নি গাড়িটির।

এই শ্রেণির গাড়ির বর্তমান রোড ট্যাক্স বছরে ৭৫ হাজার টাকা। এছাড়া প্রতিবছর ফিটনেস সনদও হালনাগাদ করতে হয়; সেটারও ফি আছে। ফিটনেস ও ট্যাক্স টোকেন হালনাগাদ না থাকলে নির্ধারিত হারে জরিমানার বিধান রয়েছে।

বিআরটিএ সূত্রে জানা যায়, ব্যক্তিগত ব্যবহারের গাড়ি নিবন্ধনের সময় একসঙ্গে পাঁচ বছরের ফিটনেস সনদ  দেয়া হয়। এরপর থেকে প্রতিবছর একবার করে সনদ নবায়ন করতে হয়। এছাড়াও প্রতিবছর ট্যাক্স দিতে হয়।

সূত্রটি জানায় ২০০৫ সালে গাড়িটির মালিকানা বদলের পর মালিক বিআরটিএ থেকে গাড়িটির আর কোন কাগজের হালনাগাদ করেনি।

এদিকে দেশের একটি জনপ্রিয় জাতীয় দৈনিকের খবরে উল্লেখ করা হয়েছে, সাংসদের স্টিকার লাগানো ব্রিটিশ ব্র্যান্ড ল্যান্ড রোভার গাড়িটির ইঞ্জিনক্ষমতা ২৪৯৫ সিসি। এটি প্রথমে ইউরোপের একটি দেশের দূতাবাসের জন্য আনা হয়েছিল। পরে ২০০৪ সালে দূতাবাস গাড়িটি নিলামে তুললে এটি কিনে নেয় অটোটেক লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান।

কূটনৈতিক মিশন ও আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থার জন্য গাড়ি আনতে শুল্ক লাগে না। তবে বাংলাদেশে আনার পর গাড়িটি বিক্রি করা হলে ক্রেতাকে নিবন্ধনের সময় পুরো শুল্ক পরিশোধ করতে হয়। সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর ২০০৫ সালে গাড়িটির মালিকানা বদল করা হয়।

গত বছরের ১ নভেম্বর নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর হয়েছে। এই আইনের ২১ ধারায় বলা হয়েছে, কোনো মোটরযানের মালিকানা পরিবর্তন হলে ৩০ দিনের মধ্যে এর মালিককে বিষয়টি লিখিতভাবে জানাতে হবে। আর ৬০ দিনের মধ্যে যানবাহনের গ্রহীতা বা ক্রেতাকে বিআরটিএ থেকে নিজ নামে নিবন্ধন করিয়ে নেয়ার আবেদন করতে হবে। ৩০ দিনের মধ্যে মালিকানা বদল করে ক্রেতার নামে নিবন্ধন দেবে বিআরটিএ।

আইনের এই ধারাটি লঙ্ঘনের দায়ে সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে।

এ ছাড়া আইনে ফিটনেস সনদ ও ট্যাক্স টোকেন হালনাগাদ না থাকলে সর্বোচ্চ ছয় মাসের কারাদণ্ড বা ২৫ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের কথা বলা হয়েছে। একই সাজা প্রযোজ্য হবে ট্যাক্স টোকেন হালনাগাদ না থাকলেও।

প্রসঙ্গত:গত রোববার রাতে রাজধানীর কলাবাগান এলাকায় ঢাকা মেট্রো ঘ-১১-৫৭৩৬ নম্বরের গাড়িটিতে ধাক্কা লেগেছিল নৌবাহিনীর কর্মকর্তা ওয়াসিফের মোটরসাইকেল। এরপর ওই গাড়ি থেকে কয়েকজন নেমে ওয়াসিফকে রাস্তার উপর জনসম্মুখে মারধর করে। গাড়িতে সাংসদ হাজি সেলিমের ছেলে ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইরফান মোহাম্মদ সেলিম ছিলেন।

এ মারধরের ঘটনা এক প্রত্যক্ষদর্শী তার মোবাইলে ভিডিও করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। পরবর্তিতে এ নিয়ে সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয় পরের দিন সকালে ভুক্তভোগী ওয়াসিফ বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে তার সূত্র ধরে সাংসদ হাজী সেলিমের বাড়িতে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে অবৈধ অস্ত্র,ইয়াবা,বিদেশি মদ,ওয়াকিটকিসহ বেআইনি বিপুল পরিমান সরঞ্জাম উদ্ধার করে। এবং তাৎক্ষনিক র‌্যাবের মোবাইল কোটের মাধ্যমে সেলিম পুত্র ইরফানসহ দুজনকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। গাড়িটি বর্তমানে ধানমন্ডি থানার হেফাজতে রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *