ভোলা প্রতিনিধি:

জেলার চরফ্যাশন উপজেলায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ১০ বছরের শিশুর বয়স ২৫ বছর দেখিয়ে তার বিরুদ্ধে ২২ বছরের প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ করে ৩ মাসের অন্তঃসত্বা করার অভিযোগে মামলা করেছে।

আর ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগ করা হয়েছে ওই শিশুর বাবা ও বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে। ঘরবাড়ি থেকে উচ্ছেদ করতে স্থানীয় ভূমিদস্যু এ ষড়যন্ত্র করছে বলে দাবি করছে ভুক্তভোগীদের পরিবার।

তবে আদালতে করা অভিযোগটি তদন্তে প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত পরিবারটিকে সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার।

ভোলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতে একই থানাধীন ৯নং ওয়ার্ডের আ. বারেকের মেয়ে সুরমা বেগম অভিযোগ দায়ের করেন- বিয়ের প্রলোভনে আসামি মো. আল আমিন ওরফে নাঈম তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেছে। বর্তমানে সে ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। মামলায় আল-আমিনের বয়স ২৫ বছর উল্লেখ করা হয়।

কিন্তু নীলকমল ইউনিয়ন পরিষদ নিবন্ধন বহি নং-০১১ নিবন্ধন তারিখ-০১/০৪/১৭; যার ব্যক্তিগত পরিচিতি নং ২০১০০৯১২৫৭৬১০৪৩৯২। জন্ম তারিখ ১ জানুয়ারি ২০১০ (০১/০১/২০২০)। এ অনুসারে তার বয়স দাঁড়ায় ১০ বছর ৭ মাস।

আসামি শিশুর বাবা বলেন, আমার বড় ছেলে, ছোট ছেলে এবং আমাকে আসামি করা হয়েছে।
শিশুটির মা বলেন, আমার শিশুরে শত্রুতা করে মামলা দিছে আমি এর বিচার চাই।

জমি জমা বিরোধকে কেন্দ্র করে নাবালক ছেলেকে মামলায় জড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতিবেশীরাও।

অন্যদিকে বাদী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় ডেলিভারির পরে ডিএনএ টেস্ট করে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন বলে জানিয়েছেন ভোলা জেলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

তবে এর আগে শিশুর পরিবার যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেটি নিশ্চিত করবে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *