জেলা প্রতিনিধি,কিশোরগঞ্জ:
কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা ইটনায় স্বামীর পাশে ঘুমন্ত অবস্থায় অজ্ঞাতের উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন আকলিমা আক্তার (২০) নামে এক অন্ত:সত্ত্বা স্ত্রী।

শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার রায়টুটী ইউনিয়নের কালনা গ্রামে এ চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

রোববার সন্ধ্যায় কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে তার লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে।

নিহত আকলিমা আক্তার কালনা গ্রামের মৃত ইছহাক আলীর মেয়ে এবং জেলার তাড়াইল উপজেলার বরুহা গ্রামের জিন্নত আলীর স্ত্রী।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বছর খানেক আগে তাড়াইল উপজেলার বরুহা গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে জিন্নত আলীর সঙ্গে আকলিমা আক্তারের বিয়ে হয়। প্রায় তিন মাসের অন্ত:সত্ত্বা আকলিমা আক্তার স্বামী জিন্নত আলীকে নিয়ে রায়টুটীর কালনা গ্রামে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন।

শনিবার রাতে স্বামী জিন্নত আলী, মা আরজুদা বেগম, দুই ভাই, ভাবী, বোন ও ভগ্নিপতিকে নিয়ে একসঙ্গে রাতের খাবার খান আকলিমা। খাবার শেষে একই ঘরে আলাদা আলাদা বিছানায় তারা ঘুমিয়ে পড়েন। এরপর রাত সাড়ে ১২ টার দিকে স্বামীর পাশে ঘুমন্ত আকলিমাকে কোনো অজ্ঞাত ব্যক্তি উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে আকলিমা গুরুতর জখম করে।

পরিবারের দাবি, সিঁদ কেটে অজ্ঞাত পরিচয়ের কেউ ঘরে ঢুকে আকলিমার বুকে ছুরিকাঘাত করে। এসময় আকলিমার চিৎকারে তারা ঘুম থেকে জেগে ওঠেন। ছুরিকাঘাতের কিছুক্ষণের মধ্যেই তার মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে রোববার সকালে অষ্টগ্রাম সার্কেলের এএসপি আজিজুল হক ও ইটনা থানার ওসি মোহাম্মদ মুর্শেদ জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এছাড়া সিআইডির এবং পিবিআই এর পৃথক দুটি দল ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করেছে।

ইটনা থানার ওসি মোহাম্মদ মুর্শেদ জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সুরতহাল শেষে নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

কি কারণে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটেছে, সেটি এখনও স্পষ্ট নয়। হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে অনুসন্ধান চালানো হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *