জেলা প্রতিনিধি,মাদারীপুর:
মাদারীপুর সদর উপজেলায় পারিবারিক কলহের জের ধরে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আহম্মেদ হাওলাদারকে (৪৮) পুঁতা ও রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে তার স্ত্রী মিলি আক্তারের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে সদর উপজেলার সৈয়দারবালী এলাকার ইলিয়াস আহম্মেদ হাওলাদারের নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানায়, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আহম্মেদ প্রতিদিনের মতো বুধবার রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। পারিবারিক কলহের জেরে বৃহস্পতিবার ভোরে পুঁতা দিয়ে ইলিয়াসের মাথায় আঘাত করেন স্ত্রী মিলি। পরে রড দিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত করা হয় তাকে।

সকালে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন পরিবারের অন্য সদস্যরা। অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের ডাক্তার অখিল সরকার বলেন, ‘সকালে গুরুতর আঘাত নিয়ে সদর হাসপাতালে ভর্তি হন ইলিয়াস আহম্মেদ। তার মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন আছে। মাথায় বেশ কয়েকটি সেলাই লেগেছে। পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।’

ইলিয়াস আহম্মেদের বাড়িতে গিয়ে তার স্ত্রী-সন্তান কাউকে পাওয়া যায়নি। ইলিয়াস আহম্মেদের মামা মো. শহীদ বলেন, ‘এটা পারিবারিক ঘটনা, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দ্বন্দ্ব।

ইলিয়াসের স্ত্রীর বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ঘটনার পর তিনি বাড়ি থেকে চলে যান।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) রেজাউল করিম বলেন, ‘পারিবারিক কলহের থেকে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য ইলিয়াস আহম্মেদকে ঢাকায় পাঠিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। তার পক্ষ থেকে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *