নিজস্ব প্রতিবেদক,সিলেট:

সিলেটে বন্ধ থাকা পাথর কোয়ারিগুলো খুলে দেওয়া, সিএনজিচালিত অটোরিকশায় গ্রিল সংযোজনের সিদ্ধান্ত বাতিলসহ কয়েকটি দাবিতে ধর্মঘটে নেমেছে সিলেটের পরিবহণ সংগঠনগুলো। এর মধ্যে বন্ধ থাকা পাথর কোয়ারিগুলো দেওয়ার দাবিতে আজ মঙ্গলবার থেকে টানা তিন দিনের ধর্মঘটে নেমেছে ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ডভ্যান মালিক ঐক্য পরিষদ, বাস মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ ও পাথর ব্যবসায়ী মালিক ঐক্য পরিষদ।

সোমবার বিকেলে সিলেট বিভাগীয় ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ড ভ্যান মালিক ঐক্য পরিষদ সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারে ধর্মঘটের সর্বশেষ প্রস্তুতির সভা করেছে। সভা শেষে সন্ধ্যায় সংগঠনটির পক্ষ থেকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মঙ্গলবার ভোর ছয়টা থেকে ২৪ ডিসেম্বর শুক্রবার ভোর ছয়টা পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে। ধর্মঘটে সিলেট বিভাগের বাস, ট্রাক, মিনিবাস, মাইক্রোবাস, কোচ, লেগুনা, ট্যাংকলরি, সিএনজিসহ সব গণপরিবহনের চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে অ্যাম্বুলেন্স, বিদেশযাত্রী, ফায়ার সার্ভিস, সংবাদপত্র ও জরুরি ওষুধ সরবরাহের গাড়ি ধর্মঘটের আওতামুক্ত থাকবে।

এদিকে, পরিবহণ ধর্মঘটের জন্য ভোগান্তিতে পড়েছেন জেলার সাধারণ মানুষ। জরুরি প্রয়োজনে রাস্তায় নেমে এসেছেন অনেকেই। জেলার বাসিন্দারাও চাচ্ছেন, এ সমস্যার দ্রুত সমাধান হোক।

ধর্মঘটে একাত্মতা পোষণ করেছে সিলেটের পরিবহণ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সংগঠনও। যার ফলে আজ সকাল থেকে তিন দিন সিলেট থেকে সব ধরনের দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ থাকছে। জেলার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যাবে না এবং কোনো বাস সিলেটে প্রবেশ করবে না। এ ছাড়া আন্তঃজেলা বাস চলাচলও বন্ধ রয়েছে। সিলেট জেলা পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক এ তথ্য জানিয়েছেন।

পরিবেশ ধ্বংস ও ব্যাপক প্রাণহানির পর সিলেটের পাথর কোয়ারিগুলো থেকে পাথর উত্তোলন নিষিদ্ধ করে খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়। এ সিদ্ধান্তের ফলে পরিবহণ ব্যবসায়ী ও শ্রমিকেরা সংকটে পড়েছেন দাবি করে পাথর কোয়ারিগুলো খুলে দেওয়ার জন্য আন্দোলনে নামে সিলেট বিভাগীয় ট্রাক-পিকআপ-কাভার্ডভ্যান মালিক ঐক্য পরিষদ ও সিলেট জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপ। ধারাবাহিক আন্দোলনের পর (আজ) মঙ্গলবার থেকে তারা ধর্মঘটের ডাক দেয়।

এদিকে, সিএনজিচালিত অটোরিকশায় গ্রিল সংযোজনের নির্দেশনা প্রত্যাহারসহ ছয় দফা দাবিতে সিলেটে গতকাল সোমবার সকাল থেকে ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট পালন করছেন অটোরিকশা শ্রমিকরা। ধর্মঘটের কারণে সিলেটে বন্ধ রয়েছে অটোরিকশা চলাচল। এ ধর্মঘট চলবে আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত। এ কর্মসূচির কারণে দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে মানুষকে। নগরীর ভেতরে ও আশপাশের এলাকায় চলাচলকারী যাত্রীদের সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়তে হয়।

অটোরিকশা ধর্মঘট চলাকালে গতকাল বেলা ১১টায় সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের তেলীবাজারে মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের নেতারা প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *