নিজস্ব প্রতিবেদক:

সাভারের অ্যাসেড স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী নীলা রায়কে নৃশংসভাবে ছুরিকাঘাতে হত্যার ঘটনায় ক্ষোভ ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ৬৭টি নারী, মানবাধিকার ও উন্নয়ন সংগঠনের প্ল্যাটফরম ‘সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি’।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে ৬৭ সংগঠনের মোর্চা।

একইসাথে ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার, যথাযথ আইনি ব্যবস্থাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিও জানানো হয়। সামাজিক প্রতিরোধ কমিটির পক্ষে বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম।

বিবৃতিতে বলা হয়, আমরা লক্ষ্য করছি যে, প্রতিনিয়ত কিশোরী, তরুণী ও স্কুলছাত্রীসহ নারীরা যৌন নিপীড়ন, উত্ত্যক্তকরণের কারণে নৃশংস নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। ফলে তারা আত্মহত্যা করতে বাধ্য হচ্ছে এবং বর্বর হত্যার শিকার হচ্ছে। স্কুলছাত্রীকে প্রকাশ্যে রিকশা থেকে টেনেহিচড়ে নামিয়ে নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনা আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতিকে প্রশ্নবিদ্ধ করে।

সেই সাথে সামাজিক অবক্ষয়, বিচার প্রক্রিয়ার দীর্ঘসূত্রিতা ও বিচারহীনতার সংস্কৃতির ফলে তরুণদের মধ্যে এই ধরনের অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, এ ধরণের বর্বর, নৈরাজ্যজনক সহিংসতার ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে আশুকার্যকর পদক্ষেপ নিতে সরকার, প্রশাসনের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করা হচ্ছে। সেইসাথে সব ধরনের নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা প্রতিরোধে সবাইকে সামাজিক প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানাচ্ছে কমিটি।

সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি ৬৭টি নারী, মানবাধিকার ও উন্নয়ন সংগঠনের প্ল্যাটফরম। এটি বাংলাদেশের নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, নারীর মানবাধিকার অর্জন ও রক্ষার লক্ষ্যে বহুমুখী প্রতিরোধ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। ৬৮টি সংগঠনের মধ্যে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, আইন ও সালিশ কেন্দ্র, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ, ব্র্যাক, বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন, পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন, অ্যাকশন এইড বাংলাদেশ, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট বাংলাদেশ, গণস্বাক্ষরতা অভিযান, বাংলাদেশ নারীসাংবাদিক কেন্দ্র, জাতীয় নারী জোট, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম, বিল্স, এডাব, ব্লাস্ট, সেভ দ্য চিলড্রেন অন্যতম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *