মাদারীপুর প্রতিনিধি:


মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে দুই ফেরিতে যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড়ে পদদলিত হয়ে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। এঘটনায় আহত ও অসুস্থ হয়েছেন আরো অর্ধশতাধিক যাত্রী।

আজ বুধবার (১২ মে) শিমুলিয়া থেকে বাংলাবাজার যাওয়ার পথে শাহ পরান ও এনায়েতপুরী নামের দুটি রো রো ফেরিতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে শাহ পরানে একজন ও এনায়েতপুরীতে চারজন মারা যান।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিরাজ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি জানান, দুপুর ২টার দিকে এনায়েতপুরী ফেরিটি বাংলাবাজারের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। এসময় পন্টুনে কিছু যাত্রী দাঁড়িয়েছিলেন। পন্টুন ওঠানোর সময় এটি খাড়া হয়ে গেলে তারা অন্য যাত্রীদের মধ্যে পড়ে যান। এসময় হুড়োহুড়ি ও গরমে তারা মারা যান বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফেরিটি বাংলাবাজারে পৌঁছলে চারজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এর আগে সকাল ১১টার দিকে ৩ নম্বর ফেরিঘাটে শাহ পরান নামের রো রো ফেরিটি ভিড়লে নামার সময় যাত্রীদের চাপে আনসার মাদবর নামের এক কিশোর যাত্রীদের চাপে অসুস্থ হয়ে ফেরির পন্টুনেই মারা যায়।

আনসার মাদবরের বাড়ি শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার কালিকা প্রসাদ গ্রামে।

মিরাজ হোসেন আরো জানান, বুধবার বেলা ১১টার দিকে তিন নম্বর ফেরিঘাটে শাহ পরান নামের রোরো ফেরিটি ভিড়লে নামার সময় যাত্রীদের চাপে আনছার মাদবর নামের এক কিশোর যাত্রীদের চাপে অসুস্থ হয়ে ফেরির পন্টুনেই মারা যায়। তার বাড়ি শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার কালিকা প্রসাদ গ্রামে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *