নিজস্ব প্রতিবেদক :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করার আগে নিতে হবে অনুমোদন । প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এ আইন করা হচ্ছে। যত্রতত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠা রোধ করতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

সোমবার শিক্ষা বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ইরাব) আয়োজনে এক অনলাইন সেমিনারে এ কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, যখন এমপিওভুক্তি করছি তখন প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিচ্ছেন, এখন থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করলে অনুমোদন নিয়ে স্থাপন করতে হবে। অনেকে যত্রতত্র যেকোনোভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন করেন।

নানানভাবে চাপ প্রয়োগ করে অনুমোদন নেন। কেউ এমপিওভুক্তি চাইবে না এ শর্ত থেকে অনুমোদন দেয়া হলেও সবাই এমপিও চান। সরকারের আর্থিক সক্ষমতা বহুগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে কিন্তু তারপরও যদি প্রতিদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হয় তবে সরকারের একমোডেট করার সাধ্য কতোটুকু আছে সেটাও বুঝতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, কারিগরির প্রসারে প্রয়োজন মানোন্নয়ন। আমাদের দীর্ঘদিন শিক্ষক নিয়োগ হয়নি। সেই নিয়োগ দেওয়ার বড় উদ্যোগ নিয়েছি। শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। মানসম্মত ল্যাব, ইকিউপমেন্ট এগুলো থাকতে হবে, তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একাডেমির লিংকেজ খুব জরুরি।

কারিগরি ডিপ্লোমা কোর্স নিয়ে অনেকেই অনেক কথা বলেন। কিন্তু আমাদের মডিউলার শিক্ষায় যেতেই হবে। কারণ আজকে একটা ডিগ্রি করে কাজে যাবো এরপর বারবার ডিগ্রি করতে আসার সুযোগ নেই। কাজেই ডিগ্রির কোর্সটাকে ভেঙে ভেঙে মডিউল করতে হবে। যার যে মডিউল প্রয়োজন সেটাতে সে শিক্ষার্থী হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কারিগরির অনেক সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক নাকি বলেন, তারা শিক্ষার্থীদের জীবন নষ্ট করছেন। আমি জানতে চাই তারা কোন শিক্ষক। কারিগরির শিক্ষকরা এটা কী করে বলেন? কারণ কারিগরির কোনো শিক্ষার্থী বেকার থাকছে? তাদের কর্মসংস্থান হচ্ছে।

বরং যারা অন্যান্য শিক্ষায় আছে সনদধারী হয়েও তাদের কর্মসংস্থান হচ্ছে না। আমাদের এদিকেও মনোযোগ দিতে হবে। সকলকে চাকরি খুঁজলে হবে না, উদ্যোক্তা হতে হবে।

এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইরাব) সভাপতি মোসতাক আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান, কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোরাদ হোসেন মোল্লা, বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আবুল কাশেম প্রমুখ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইরাবের সাধারণ সম্পাদক নিজামুল হক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *