আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

সমুদ্রপথে লিবিয়া থেকে ইউরোপে যাওয়ার সময় ভূমধ্যসাগরে ৩৫ জন যাত্রী নিয়ে একটি নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। আজ শুক্রবার জাতিসংঘ জানিয়েছে ওই নৌকায় বাংলাদেশ সহ  বেশ কয়েকটি দেশের অভিবাসীরা ছিলেন।

বার্তা সংস্থা এপির বরাত দিয়ে ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, লিবিয়ার জেলেরা গতকাল বৃহস্পতিবার নৌকাটিকে দেখতে পান। তারা ২২ জনকে উদ্ধার করতে পারলেও ১৩ জনের কোনো খোঁজ পাননি। যারা উদ্ধার হয়েছেন, তাদের মধ্যে বাংলাদেশ, মিশর, সিরিয়া, সোমালিয়া এবং ঘানার নাগরিক রয়েছেন। নিখোঁজ ১৩ জনের বিষয়ে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিস্তারিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

ওয়াশিংটন পোস্টের তথ্য অনুযায়ী, তিনটি লাশ পানিতে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া গেছে। এর মধ্যে এক পুরুষ এবং এক নারীর বাড়ি সিরিয়ায়। লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলির পূর্বাঞ্চলের এলাকা জেলাইটেন থেকে গত বুধবার সন্ধ্যায় নৌকাটি যাত্রা শুরু করে। দেশটির কোস্ট গার্ড জানিয়েছে, তারা উদ্ধার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

লিবিয়ার নৌ-কর্মকর্তা মাসউদ আবদাল সামাদ বলেন, ‘শরৎ খুব কঠিন মৌসুম। বাতাস শুরু হলে নদীতে প্রাণঘাতী অবস্থার সৃষ্টি হয়। পাচারকারীরা প্রায়ই ঝুঁকিপূর্ণ নৌকায় মানুষদের সাগরে ভাসায়।

জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজার মানুষ মারা গেছে এই অঞ্চলে! শুক্রবারের দুর্ঘটনায় যারা বেঁচে গেছেন তাদের ত্রিপোলি বন্দরের আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *