অনলাইন ডেস্ক:
দক্ষিণ ইসরায়েলের পর্যটন নগরী ইলাতে ঘুরতে এসেছিল ১৭ বছরের এক কিশোরী। উঠেছিল একটি পর্যটন মোটেলে। ওই মোটেলেই গণধর্ষণের শিকার হয় সে। গত মঙ্গলবার ঘটনার ব্যাপারে অভিযোগ সামনে আনে ভুক্তভোগী।

সে জানায় ৩০ তরুণ তাকে লাইনে দাঁড়িয়ে ধর্ষণ করেছে!

এমন চাঞ্চল্যকর অভিযোগের পর ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চল থেকে ২৭ বছরের এক তরুণকে আটক করে দেশটির পুলিশ। যে মোটেলে ওই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়, সেখানকার সিসিটিভি ফুটেজ দেখে আটক তরুণকে শনাক্ত করে অভিযান চালিয়ে আটক করা হয়। অন্যদের আটকে অভিযান চলছে বলে ইসরায়েলের পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

কাতার ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গণধর্ষণের এ ঘটনা সামনে আসার পর ইসরায়েলের মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করছে। রাস্তায় রাস্তায় তারা বিক্ষোভ করছে।

ঘটনার ব্যাপারে বলা হয়েছে, লোহিত সাগরের পাড়ে ইসরায়েলের বন্দর নগরি ইলাত জর্ডান উপত্যাকার পাশে প্রাকৃতিক সুন্দর্যমণ্ডিত এলাকাটিতে ঘুরতে এক বন্ধুসহ আসে ওই কিশোরী। তারা একটি মোটেল ভাড়া করে সেখানকার কক্ষে ওঠে। ঘটনাটি যখন ঘটে, কিশোরী মদ্যপ অবস্থায় ছিল বলে দাবি করেছে পুলিশ।

ইসরায়েলের জাতীয় দৈনিক হারেতজ পুলিশের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, কিশোরীর বন্ধু তার মদ্যপানের বিষয়টি জানিয়েছে। তারা প্রচুর পরিমাণে মদ পান করে অচেতন ছিল। এ সুযোগে ৩০ তরুণের একটি দল তাদের মোটেলের কক্ষে এসে তার বান্ধবীকে ধর্ষণ করতে শুরু করে। তারা একটি লাইনে দাঁড়িয়ে ছিল। একজনের পর একজন ধারাবাহিকভাবে কিশোরীকে ধর্ষণ করতে থাকে।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, আটক তরুণ নিজের দোষ স্বীকার করেছে। ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তিনি বলেছেন, কিশোরীর সঙ্গে থাকা বন্ধুটি চেষ্টা করেও তাকে রক্ষা করতে পারেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *