নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজধানীতে ভাড়া বাসার দুই রুমে ঝুলছিল বাবা ছেলের মরদেহ। খবর পেয়ে মরদেহ গুলো উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটে বুধবার (১১ নভেম্বর) হাতিরঝিল থানা পুলিশ বিকেলের দিকে সংবাদ পেয়ে মগবাজার নয়াটোলা র‍্যাব অফিসের পাশে একটি বাড়ির পাঁচতলা থেকে ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল মর্গে পাঠিয়েছে।

নিহতরা হলেন- খাইরুল ইসলাম সোহাগ (৫৫) ও তার ছেলে শাহারাত ইসলাম আরিন (১৪)।

তাদের বাড়ি লক্ষ্মীপুর রামগঞ্জ উপজেলায় এলাকায়। বর্তমানে মগবাজার নয়াটোলা র‍্যাব অফিসের পাশে একটি ভবনের পাঁচতলার ভাড়া থাকত।

হাতিরঝিল থানার (ইন্সপেক্টর তদন্ত) মহিউদ্দিন ফারুকী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সন্ধ্যার দিকে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে বাবা-ছেলের ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পাই।

তিনি আরও জানান, আরিন শারীরিক প্রতিবন্ধী ছিল, একটি হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছিল। তার বাবা ব্যবসার লোকসানের কারণে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিল।

ঘটনার সময় সোহাগের স্ত্রী নাজমুন নাহার নূপুর বাজারে গিয়েছিলেন। পরে বাজার থেকে এসে দেখে দরজা বন্ধ তারপরে দুটি লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে ঝুলন্ত অবস্থায় দুটি মৃতদেহ পৃথক কক্ষে ছিল।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও জানান, দুজনেরই ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখন বাবা ছেলেকে মেরে সে নিজে আত্মহত্যা করেছে কিনা বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *