ঢামেক,প্রতিবেদক:

রাজধানীতে তিন ছেলে মিলে বাবাকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ হত্যাকান্ডে সহায়তা করেছে খোদ নিহতের স্ত্রী।

আজ মঙ্গলবার হাজারীবাগে দক্ষিণ বসিলায় ঘটনাটি ঘটে।নিহতের নাম লাল মিয়া (৪৫)। তিনি পেশায় সবজি বিক্রেতা ছিলেন।

বিকালে স্থানীয়রা লাল মিয়াকে উদ্ধার করে রক্তাক্ত অবস্থায়  ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ভাই শহর আলী জানান, হাজারীবাগের দক্ষিণ বসিলা ১৪৫ নম্বর নিজ বাসার দোতলায় থাকতেন লাল মিয়া। আর তিন ছেলে একই বাড়িতে আলাদা তিনতলায় থাকতেন। পারিবারিক কলহের জের ধরে ৭-৮ মাস আগে স্ত্রী আরজুদা বেগমকে তালাক দেন লাল মিয়া। তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী আরজুদা বেগমও বাড়ির তিনতলায় ছেলেদের সঙ্গে থাকতেন।তিন ছেলে মায়ের পক্ষেই ছিলেন।

লাল মিয়ার ছেলে ও স্ত্রীর সঙ্গে সবসময় ঝগড়া লাগত। মঙ্গলবার দুপুরে ছেলেরা তার ঘরে ঢুকে কুপিয়ে তাকে হত্যা করে নিজেরা পালিয়ে যায়। এ সময় স্ত্রী আরজুদা বেগম কোন রকম বাধা না দিয়ে হত্যায় সহায়তা করে।

পরে লাল মিয়াকে রক্তাক্ত অবস্থায় বাসায় পড়ে থাকতে দেখেন শহর আলী। তাৎক্ষনিক তাকে উদ্ধার করে প্রথমে শিকদার মেডিকেলে নেয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ঢামেক হাসপাতালে আনা হয়। বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবগত করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *