ম.হারুন অর-রশিদ,মাদারীপুর:
আজ মাদারীপুরসহ দেশের  ৯টি জেলায় একযোগে চালু হলো ইলেকট্রনিক্স পাসপোর্টের (ই-পাসপোর্ট) সেবা।
ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ আইয়ূব চৌধুরী বুধবার দুপুরে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই আধুনিক সেবার উদ্বোধন করেন ।
এ সময় মাদারীপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক মো. রুস্তম আলীসহ নয় জেলার উপ-পরিচালক  ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন।
মাদারীপুর আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপ-পরিচালক মো. রুস্তম আলী সাংবাদিকদের বলেন, ই-পাসপোর্ট সেবার মাধ্যমে বাংলাদেশ আরও একধাপ এগিয়ে গেলো। কেননা এই পাসপোর্টে ১০ আঙ্গুলের ছাপ, চোখের আইরিশসহ আধুনিক সিকিউরিটি সুবিধাথাকবে। এর ফলে কেউ আর চাইলেই জাল পাসপোর্ট তৈরি করতে পারবে না। এখন আর কোন রকম জালজালিয়াতি করার সুযোগ নেই। যদি বিশ বছর পরেও  কেউ অন্য একজনের পাসপোর্ট নিয়ে ছলচাতুরি করার চেষ্টা করে সেটা সম্ভব হবে না।
যেভাবে ই-পাসপোর্টের আবেদন করা যাবে।
ই-পাসপোর্টের জন্য অনলাইনে www.dip.gov.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে গিয়ে আবেদন করা যাবে।
সাইটে বাংলা বা ইংরেজি ভাষা নির্বাচনকরে নেওয়ার সুবিধা আছে। সেখানে শুরুতেই অনলাইনে পাসপোর্ট আবেদন: নতুন/রি-ইস্যু বাটনপাওয়া যাবে। এখানে ক্লিক করে সরাসরি আবেদনপ্রক্রিয়া শুরু করা যাবে। এর আগে দেখে নিতেপারেন ই-পাসপোর্ট আবেদনের ৫টি (পাঁচ) ধাপ।
একটি ধাপ হচ্ছে বর্তমান বসবাসরত জেলাতে ই-পাসপোর্টকার্যক্রম শুরু হয়েছে কি না, তা দেখা। এর পরেরগুলো হচ্ছে অনলাইনে ই-পাসপোর্ট আবেদনফরম, পাসপোর্ট ফি পরিশোধ, ছবি ও ফিঙ্গারপ্রিন্টের জন্য পাসপোর্ট অফিসে যোগাযোগ ও পাসপোর্টঅফিস থেকে ই-পাসপোর্ট সংগ্রহ।
এর মধ্যে খেয়াল রাখতে হবে, কাগজপত্র ও ব্যক্তিগত তথ্যযাচাই, আবেদনকারীর ছবি তোলা, আঙুলের ছাপ ও আইরিশের ছবি গ্রহণ, যথাযথভাবে পাসপোর্ট ফিপরিশোধ হয়েছে কি না এবং তালিকাভুক্তির পর সরবরাহ করা ডেলিভারি স্লিপ সংরক্ষণ। পাসপোর্টগ্রহণের সময় ডেলিভারির রসিদ প্রদর্শন বাধ্যতামূলক।
এ ছাড়া সর্বশেষ পুরোনো পাসপোর্ট(যদি থাকে) নিতে হবে। ই-পাসপোর্ট আবেদন অনলাইনে দাখিল করার সময়ে পাসপোর্ট ফি পরিশোধকরা যাবে। পাসপোর্ট ফি স্বয়ংক্রিয়ভাবে হিসাব করা হবে। বাংলাদেশের পাসপোর্ট অফিসের আবেদনদাখিলের ক্ষেত্রে অনলাইনে পেমেন্ট করা যাবে।
অনলাইন পেমেন্ট ছাড়াও ওয়ান ব্যাংক, প্রিমিয়ারব্যাংক, সোনালী ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া এবং ঢাকা ব্যাংকে টাকা জমা দেওয়াযাবে। সোনালী ব্যাংকের পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে অনলাইন পেমেন্ট দেওয়া হয় এবং এখনপর্যন্ত চালু করা অনলাইন পেমেন্ট পদ্ধতি হলো স্টারকার্ড, ভিসা, কিউ-ক্যাশ, মোবাইল ব্যাংকিংয়েবিকাশ ও ডিবিবিএল নেক্সাস। অনলাইনে পেমেন্ট করার জন্য আপনার ব্রাউজারের পপ-আপ ব্লকারঅক্ষম করতে হবে।
ফি কত? ৫বছর মেয়াদি ২১ দিনের নিয়মিত সরবরাহ ৪ হাজার ২৫ টাকা, ১০ দিনের দ্রুত সরবরাহ ৬ হাজার৩২৫ টাকা, ২ দিনে সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি ৮ হাজার ৬২৫ টাকা। ৪৮ পৃষ্ঠা ১০ বছর মেয়াদি২১ দিন ডেলিভারি ৫ হাজার ৭৫০ টাকা, ১০ দিনের ডেলিভারি ৮ হাজার ৫০ টাকা ও ২ দিনের ডেলিভারি১০ হাজার ৩৫০ টাকা। ৬৪ পৃষ্ঠা ৫ বছর মেয়াদি ২১ দিনের ডেলিভারি ৬ হাজার ৩২৫, ১০ দিনেরডেলিভারি ৮ হাজার ৬২৫, ২ দিনের ডেলিভারি ১২ হাজার ৭৫ টাকা, ৬৪ পৃষ্ঠা ১০ বছর মেয়াদি২১ দিনের ডেলিভারি ৮ হাজার ৫০, ১০ দিনের ডেলিভারি ১০ হাজার ৩৫০, ২ দিনের ডেলিভারি ১৩হাজার ৮০০ টাকা।
ই-পাসপোর্টের সুবিধাই-পাসপোর্টেরসবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এর মাধ্যমে ই-গেট ব্যবহার করে খুব দ্রুত ও সহজে ভ্রমণকারীরাযাতায়াত করতে পারবেন। ফলে বিভিন্ন বিমানবন্দরে ভিসা চেকিংয়ের জন্য লাইনে দাঁড়াতেহবে না। এর মাধ্যমেই ইমিগ্রেশন দ্রুত হয়ে যাবে।
ই-গেটের নির্দিষ্ট স্থানে পাসপোর্টরেখে দাঁড়ালে ক্যামেরা ছবি তুলে নেবে। থাকবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট যাচাইয়ের ব্যবস্থাও।সব ঠিক থাকলে তিনি ইমিগ্রেশন পেরিয়ে যেতে পারবেন। কোনো গরমিল থাকলে জ্বলে উঠবে লালবাতি।কারও বিরুদ্ধে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা থাকলে, সেটিও জানা যাবে সঙ্গে সঙ্গে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *