নিজস্ব প্রতিবেদক:

পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেছেন জীবনটা খুবই কঠিন। শরীর থেকে ইউনিফর্ম নেমে গেলে তা বোঝা যাবে। এ কারণে মাদক থেকে দূরে থাকার কোনো বিকল্প নেই।

সোমবার (৭ ডিসেম্বর) রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

কমিশনার বলেন, পেশাগত কাজ করতে গিয়ে নানা সুবিধা-অসুবিধা থাকতে পারে। তবে অসুবিধাগুলো ক্রমান্বয়ে কিভাবে সমাধান করা যায় তা নিয়ে কাজ চলছে। আবার বর্তমানে পুলিশকে যত ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হচ্ছে অতীতের কোনো সময় দেওয়া হয়নি। তারপরও পুলিশ যেন তার পরিবার বা নিজের জীবন আরো উন্নতভাবে যাপন করতে পারেন সে জন্য কাজ করা হচ্ছে।

পুলিশের বিশেষ কল্যাণ সভায় তিনি বলেন, মাদকের বিষয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ খুব শক্ত অবস্থানে। এ কারণে মাদকের সঙ্গে সম্পৃক্ত পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট এর আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। অনেকের চাকরিও চলে গেছে। মাদকের সম্পৃক্ততা কোনোভাবেই চাকরি জীবনে রাখা যাবে না।

করোনায় পুলিশ সম্মুখভাগে থেকে কাজ করে মানুষের সাধুবাদ অর্জন করেছে উল্লেখ করে মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এ ধারাবাহিকতা আমাদের ধরে রাখতে হবে। করোনাকালিন পুলিশ নিজের জীবনকে উৎসর্গ করে সাধারণ জনগনের জানমালের নিরাপত্তা এবং মানবতার যে দৃষ্টান্ত দেখিয়েছে তার জন্য সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছে।

করোনায় আক্রান্ত পুলিশ সদস্য যেন দ্রুত সুস্থ ও চিকিৎসা পায় সেজন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। একটি বেসরকারি হাসপাতালে পুলিশের জন্য বিশেষভাবে ভাড়া করা হয়। পুলিশ সদস্য থেকে তার পরিবারের সার্বিক খোঁজ-খবর রাখা হয় পুলিশ প্রধান আইজিপি ডক্টর বেনজির আহমেদের নির্দেশে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার মাক্স, গ্লাভস, পিপিআই, চশমা সহ নানাবিধ সুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহ করা হয়েছে। যদিও আমাদের ২৪ সদস্যকে করোনায় অকালে প্রাণ দিতে হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *