আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

তুরস্কের পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায়, মাটি খুঁড়ে সাড়ে ৫ হাজার বছর পুরনো চারটি বাড়ি আবিষ্কার করেছেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা। তুরস্কের মালাটইয়া প্রদেশের ৭ কিলোমিটার দূরে আরস্লানটেপে এই বাড়িগুলো খুঁজে পান তারা। চারটি বাড়ি ছাড়াও ২৮টি কবর খুঁজে পেয়েছেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা। ওই কবরগুলো ১ হাজার বছর পুরনো। খবর ডেইলি সাবাহ’র।

সম্প্রতি ইউনেস্কোর সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের স্থায়ী তালিকায় স্থান করে নিয়েছে আরস্লানটেপ। প্রত্নতাত্ত্বিকরা জানান, তারা এ বছরের এক-তৃতীয়াংশ খনন সম্পন্ন করেছেন। খ্রিস্টপূর্ব ৫০০০ সাল থেকে ১১ শতক পর্যন্ত আরস্লানটেপে বসতি ছিল। পঞ্চম এবং ষষ্ঠ শতকে এটা একটি রোমান গ্রাম ছিল। পরে বাইজেন্টাইনরা এটাকে কবরস্থান হিসেবে ব্যবহার করে।

প্রত্নতাত্ত্বিক এই স্থানটিতে একটি রাষ্ট্র ব্যবস্থার জন্ম হয়। পরে ধীরে ধীরে একটি সাম্যবাদী সামাজিক কাঠামো থেকে একটি শ্রেণিবিন্যাসে রূপান্তরিত হয় এই রাষ্ট্র ব্যবস্থা। গত কয়েক বছর ধরে চলা খননকাজে এখান থেকে পৃথিবীর প্রথম বৃষ্টির পানি নিষ্কাশন লাইন, কাদা-ইটের তৈরি প্রাসাদ, সিংহের ভাস্কর্য এবং একটি উৎখাত রাজা এবং দুই হাজারেরও বেশি সিল উদ্ধার করা হয়।

৫৫ জনের একটি টিম চলতি বছরের ১০ আগস্ট খননকাজ শুরু করে। সেই খননকাজ করতে গিয়েই প্রত্নতাত্ত্বিকরা ২৮টি কবর খুঁজে পান। এগুলো ১ হাজার বছর পুরনো এবং মধ্যযুগের বলে ধারণা করা হচ্ছে। এছাড়া চারটি বাড়ির ধ্বংসাবশেষও আবিষ্কার করেছেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা। পাশাপাশি পাওয়া যাওয়া এই বাড়িগুলো সাড়ে ৫ হাজার বছর পুরনো বলে মনে করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *