নিজস্ব প্রতিবেদক:

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলেছেন, ‘আমরা কয়েক দিন আগেই কোরবানির ঈদ উদযাপন করেছি। পশুর হাটে অনেক লোক সমাগম হয়েছে। ঈদ উৎসব পালন করতেও আমরা অনেকে সমবেত হয়েছি। এ মুহূর্তে যে কারো লক্ষণ-উপসর্গ থাকলে অবশ্যই নমুনা পরীক্ষা করতে দেব।’

‘যেহেতু মহামারি রোগ গোপন করা অপরাধ, কাজেই মহামারির কোনো লক্ষণ, উপসর্গ দেখা দিলে অবশ্যই আপনারা নমুনা পরীক্ষা করবেন এবং এই রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করবেন’, যোগ করেন নাসিমা সুলতানা।

আজ শুক্রবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আয়োজিত নিয়মিত বুলেটিনে এসব কথা বলেন নাসিমা সুলতানা।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আরো বলেন, ‘আমরা যেসব স্বাস্থ্যবিধি প্রতিনিয়তই বলি, সেগুলো অবশ্যই মেনে চলতে হবে। যেমন সঠিকভাবে মাস্ক পরা, বারবার সাবানপানি দিয়ে হাত ধোয়া, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা বা জনসমাবেশ এড়িয়ে চলা। প্রতিটি জিনিস একই সঙ্গে করতে হবে, কোনো একটি আলাদাভাবে নয়।

তাহলেই আমরা এই করোনাকে মোকাবিলা করতে পারব। তা ছাড়া যাঁরা অসংক্রামক ব্যাধিতে ভুগছেন, তাঁরা অনেক বেশি সতর্ক-সচেতন থাকবেন। কারণ, করোনায় আক্রান্ত হলে তাঁদের জন্য ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়। কাজেই আপনার সুরক্ষা আপনার হাতে।’

এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে আরো ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিন হাজার ৩৩৩ জনের মৃত্যু হলো। এ ছাড়া দেশে নতুন করে আরো দুই হাজার ৮৫১ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট দুই লাখ ৫২ হাজার ৫০২ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *