অনলাইন ডেস্ক:

ভারতের আহমেদাবাদের এক ব্যক্তি স্থানীয় থানার স্ত্রীর নামে অভিযোগ দায়ের করেছেন। তার অভিযোগ প্রতিদিন মদ পান করে স্ত্রী তাকে মারধর করেন। সেই সঙ্গে তাকে মানসিকভাবেও অত্যাচার করেন। এ কারণে তিনি পুলিশের কাছে নিরাপত্তা চান।

ভারতের স্থানীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, খোকড়া থানার মানিনগর এলাকার ওই ব্যক্তির দীর্ঘ প্রেমের সম্পর্কের পর তাঁদের বিবাহ হয় ২০১৮ সালের মার্চ মাসে। কিন্তু তাঁর স্ত্রীয়ের যে মদপান করার অভ্যাস আছে তা তিনি বুঝতে পারেন বিয়ের পরে। মদপান করার পর রণংদেহী মূর্তি ধারণ করেন স্ত্রী। তাঁকে শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যাচার তো করেনই, তাঁর মা বাবাও ছাড় পান না।

ওই ব্যক্তি জানান, তার স্ত্রী বলে মা বাবার বাড়ি ছেড়ে আলাদা বাড়ি নিতে। সেখানে আলাদা সংসার শুরু করতে। সংসার আলাদা করে দিতে চান তিনি। এর মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হন ওই অভিযোগকারীর মা বাবা। সেই সময়ে হঠাৎই সব নিয়ে দ্বিতীয় তলায় চলে যান স্ত্রী। অসুস্থ শ্বশুর, শাশুড়িকে দেখভালের সামান্য দায়িত্বটুকুও নাকি তিনি নেননি। তার বদলে বাড়ির মালিকানা মা বাবা বেঁচে থাকতে থাকতে তার নামে করে দিতে চাপ দিতে থাকেন তিনি। আত্মহত্যার হুমকিও দেন।

ওই ব্যক্তির অভিযোগ, গত জুন মাসে তাঁর ও তাঁর পরিবারের নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেন স্ত্রী। এখনো স্ত্রী দ্বিতীয় তলাতেই থাকেন। একদিন ইচ্ছা করে মদের বোতল দিয়ে নিজেকে আঘাত করে মহিলা হেল্পলাইনে ফোন করেন তিনি।

খোকরা থানার পুলিশ পরিদর্শক ওয়াইএস গমিত জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে যাচাই করে ব্যবস্থা নেবেন তারা।

সূত্র: টাইমস নাউ, নিউজ এইটিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *