আদালত প্রতিবেদক:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরসহ ছয়জন আসামিকে গ্রেপ্তারের নির্দেশনা চেয়ে আদালতে আবেদন করেছেন মামলান বাদিনী। এর আগে ভিপি নুর ও ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ছয়জনের নামে ধর্ষণ ও ধর্ষণের সহযোগিতার অভিযোগে মামলাটি করা হয়েছিল।

আজ রোববার (৪অক্টোবর) ঢাকা মহানগর হাকিম বেগম মাহমুদা আক্তারের আদালতে বাদিনী এ আবেদন করেন। তবে মামলাটি অমলযোগ্য এবং জামিন অযোগ্য অপরাধের হওয়ায় আদালত গ্রেপ্তার সংক্রান্তে কোনো আদেশ না দিয়ে আবেদন নথিতে রেখেছেন বলে জানায় আদালত সূত্র।

শুনানির পর আদালত আদেশে বলেছেন, যেহেতু মামলাটি আমলযোগ্য ও জামিন অযোগ্য অপরাধের। পুলিশই আদালতের কোন আদেশ ছাড়াই যেকোনো সময় আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পারেন। তাই আবেদনটি রক্ষণীয় নয় মর্মে আদেশ দিয়ে আবেদনটি নথিভুক্ত রাখা হয়েছে।

মামলার বাদী আবেদনে বলেন, ‘তার মামলায় আসামিরা প্রভাশালী। তারা গ্রেপ্তার না হওয়ায় তিনি চরম নিরপত্তাহীনতায় ভুগছছেন। এছাড়া আসামিরা গ্রেপ্তার না হলে মামলার তদন্তও প্রভাবিত হওয়ায় সম্ভবনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে বাদী ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হতে পারেন।

গত ২০ সেপ্টেম্বর  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লালবাগ থানায় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে প্রধান আসামি করে ছয় জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলাটি দায়ের করেন। এরপর গত ২১ সেপ্টেম্বর বাদী কোতয়ালী থানায় একই  অভিযোগে আরেকটি মামলা  দায়ের করেন।

এ মামলা দায়েরের ফলে প্রধান আসামি হাসান আল মামুনকে ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছিল। এ ছাড়াও এঘটনায় রাস্তায় বিক্ষেভের সময় ভিপি নুরকে আটকের পর আবার ছেড়ে দিয়েছে  পুলিশ।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *