নিজস্ব প্রতিবেদক:


মহামারি করোনা সংক্রমণ রোধে বিধিনিষেধের চতুর্থ দিনে অকারণে বাইরে বের হওয়ায় রাজধানীতে ৬১৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

রোববার ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ১৬১ জনকে ৫৪ হাজার ৪৫০ টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া ডিএমপি ট্রাফিক কর্তৃক ৪৯৬টি গাড়ির বিরুদ্ধে মামলা করে ১২ লাখ ৮১ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ১ জুলাই সকাল ৬টা থেকে শুরু হয়েছে সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ। এই বিধিনিষেধ থাকবে আগামী ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত।

এই সময়ে জরুরি সেবা ছাড়া সকল সরকারি-বেসররকারি অফিস, যন্ত্রচালিত যানবাহন, শপিংমল দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে গত ৩০ জুন মন্ত্রিপরিষদি বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ১৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে, নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আট হাজার ৬৬১ জন। এ অবস্থায় সংক্রমণ ঠেকাতে চলমান কঠোর বিধিনিষেধ বা লকডাউন আরও অন্তত সাতদিন বাড়ানো হতে পারে। তবে পরিস্থিতি পর্যালোচনায় কোরবানির ঈদের বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করা হতে পারে।

আগামী বুধবারের মধ্যে এ বিষয়ে ঘোষণা দেওয়া হতে পারে বলে সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

সূত্র জানায় , কোভিট-১৯ সংক্রমণ রোধে ১৪ দিন এবং মৃত্যুর সংখ্যা কমিয়ে আনার জন্য ২১ দিন লকডাউনের পরামর্শ দিয়েছে বিশেষজ্ঞরা। সে অনুযায়ী ঈদ সামনে রেখে বিধিনিষেধের মেয়াদ আরও বাড়ানোর বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে।

দেশে চলমান সাতদিনের কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়েছে গত ১ জুলাই থেকে। কঠোর বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে করতে অফিস-আদালত ও গণপরিবহন বন্ধ রেখে সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব কাজ করছে। একই সঙ্গে মোবাইল কোর্টও পরিচালনা করছে সরকার। তবে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলছে।

এর আগে বিধিনিষেধ বাড়ানোর বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, সাতদিনের পর এই বিধিনিষেধ বাড়ানোর বিষয়ে বিবেচনায় রয়েছে।

তিনি আরও জানান, সংক্রমণ কমিয়ে মানুষের জীবন বাঁচানো এবং জীবিকা সচল রাখার দুটো বিষয়েই ভাবছে সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *