আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ক্লাব বার্সেলোনা ছেড়ে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি। কি চমকে উঠলেন। হ্যাঁ, প্রিয় ক্লাব বার্সেলোনা ছাড়তে চেয়ে আনুষ্ঠনিকভাবে ক্লাব কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি।

এমন খবরে গরম হয়ে উঠেছে বিশ্বের গণমাধ্যমগুলো।

তবে, এ ব্যাপারে এখনো মুখ খোলেনি কাতালান ক্লাবটি। এদিকে, জোর গুঞ্জন বার্সেলোনা ছেড়ে মেসি পাড়ি জমাচ্ছেন পিএসজিতে।

মেসি বার্সা ছাড়ছেন। কিংবা মেসিকে কিনতে টাকার বস্তা নিয়ে বসে আছে উরোপের নামিদামি ক্লাবগুলো। ২০০৪ সাল থেকে এই খবরটি গণমাধ্যমে শুধু মুখরোচক সংবাদই হয়েছে। কিন্তু বাস্তবে পরিণত হয়নি কোনোদিন। এমনকি মেসিকে কিনতে ব্লাঙ্ক চেক দিয়েছিলেন কাতারের বেশ কয়েকজন ধনকুবের ।

কিন্ত টাকার কাছে মেসির মন গলেনি এতটুকু। জীবনের সবচেয়ে প্রিয় ক্লাব মেসি ছাড়বেন কি করে। কিন্তু সময়ের সঙ্গে পরিবর্তন হয়েছে মেসির মন। আনুষ্ঠানিক ভাবে মেসি বার্সেলোনাকে চিঠি দিয়েছেন। বিষয়বস্তু মেসি বার্সা ছাড়তে চান। বড় বড় গণমাধ্যমগুলো এমন খবর নিশ্চিত করেছে।

শুধু বায়ার্নের কাছে ৮-২ গোলের পরাজয়েই এমন বড় সিদ্ধান্ত নয়। নেইমারকে কিনতে না পারা, সাবেক কোচ কিকে সেতিয়েনের সঙ্গে খারাপ সম্পর্ক ও ক্লাব প্রেসিডেন্টের সব কিছু মেনে না নেয়া। মেসির বার্সা থেকে মন উঠে যাওয়ার কারণ। সরাসরি কোনোদিন কোনো গণমাধ্যমে মুখ ফুটে বার্সাকে নিয়ে কোনো বাজে মন্তব্য করেনি মেসি। করবেন কি করে। মেসির সঙ্গে যে কাতালান ক্লাবটির আত্মার সম্পর্ক।

জীবনের শেষ ম্যাচ এই ক্লাবের হয়েই খেলতে চান জানিয়েছিলেন। কিন্তু কি এমন হলো, যে কারণে নিতে হলো জীবনের সবচেয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত। গণমাধ্যমে জোর গুঞ্জণ মেসি যোগ দিচ্ছেন পিএসজিতে।

মেসির আনুষ্ঠানিক চিঠির জবাবে কি উত্তর দিবে বার্সেলোনা? সেটার জন্য অপেক্ষা এখন সারা বিশ্বের। বার্সেলোনা ক্লাব কর্মকর্তাদের বড় একটা অংশ মেসিকে বুঝিয়েও কোনো লাভ হয়নি। আরেক অংশ মেসিকে নাকি ছেড়ে দিতেও রাজি হয়েছে। চলতি সপ্তাহে ইতালিয়ান গণমাধ্যমে এমন খবর চাওড়া হয়েছে। কোচও মেসিকে কেন্দ্র করে দল গড়বেন- বলেও রাজি করতে পারেনি। যেই ক্লাবকে কেন্দ্র করে মেসির বেড়ে ওঠা।

শুধু মেসি খেলেন বলে যারা বার্সেলোনার পাড় ভক্ত। তাদের এখন মন ভাঙ্গার যোগাড়।

মেসির সঙ্গে এখনো এক বছরের চুক্তি আছে বার্সার। এই সময়ে কেউ মেসিকে কিনতে গেলে গুনতে হবে রেকর্ড সর্বোচ্চ ৬ শতাধিক মিলিয়ন ইউরো। এতো বড় আর্থিক মূল্যে কে কিনবে মেসিকে? সে নিয়েও আগামী দিন গুলোতে চলবে প্রতিযোগিতা। কারণ নামটা যে লিওনেল মেসি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *