অনলাইন ডেস্ক:


লন্ডন ভিত্তিক ম্যাগাজিন দ্য ইকোনমিস্টের ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের বিশ্বের বাসযোগ্য শহরের তালিকায় শেষ দিক থেকে চার নম্বরে রয়েছে রাজধানী ঢাকা। অর্থাৎ বসবাস অযোগ্য শহরের তালিকায় ঢাকার স্থান চতুর্থ।

এ বছর ভিয়েনাকে সরিয়ে বাসযোগ্য শহরের শীর্ষ স্থান করে নিয়েছে নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড শহর। তালিকায় শীর্ষ দশ থেকেই ছিটকে গেছে ভিয়েনা। নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের শহরগুলোই এবারের তালিকায় এগিয়ে আছে।

বসবাস যোগ্য শীর্ষ দশ শহরের মধ্যে নিউজিল্যান্ডের দুটি, জাপানের দুটি, অস্ট্রেলিয়ার চারটি ও সুইজাল্যান্ডের চারটি শহর আছে।দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে আছে জাপানের ওসাকা ও অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডেলাইড।

এবারের তালিকাতেও একেবারে তলানিতে রয়েছে সিরিয়ার যুদ্ধবিধ্বস্ত শহর দামেস্ক। ঢাকা, করাচিসহ শেষ দশটি শহরের বেশিরভাগ শহরই এবারও শেষ দশেই ছিল।

৩৩.৫ পয়েন্ট নিয়ে ১৪০টি শহরের মধ্যে ঢাকার অবস্থান ১৩৭ তম, অর্থাৎ বসবাস অযোগ্য শহরের মধ্যে ঢাকার স্থান চতুর্থ। ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ঢাকার অবস্থান ছিল ১৩৯ ও ১৩৮ তম।

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে এবারের তালিকায় বেশ বড়সড় পরিবর্তনও এসেছে। মহামারি সৃষ্ট লকডাউন ও স্বাস্থ্য সংকটের কারণেই মূলত র‍্যাংকিংয়ে সাধারণ সময়ের চেয়ে পরিবর্তন এসেছে। এর আগে বাসযোগ্য শহরের শীর্ষ স্থানে থাকা শহরগুলোও ছিটকে গেছে।

কোভিড-১৯ প্রতিরোধে সফলতার কারণেই তালিকায় প্রথম স্থানে এসেছে দেশটির শহর অকল্যান্ড। এর আগে শেষবার ২০১৭ সালে তালিকার শীর্ষ দশে ছিল অকল্যান্ড, সেবার অকল্যান্ডের অবস্থান ছিল অষ্টম। ২০১৯ সালে ভিয়েনার সঙ্গে একই পয়েন্টে নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থান ছিল অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন।  এবার তালিকার অষ্টম স্থানে আছে মেলবোর্ন, একই পয়েন্ট নিয়ে অষ্টম স্থানে আছে জেনেভাও।

সংস্কৃতি, জলবায়ু, পরিবেশ, শিক্ষা, অবকাঠামো, স্বাস্থ্য ও জীবনযাপনের মানের ওপর ভিত্তি করে ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের বিশ্বের ১৪০টি শহরের এ তালিকা প্রকাশ করা হয়।

 

অবলম্বনে:-টিবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *