নিজস্ব প্রতিবেদক,বরিশাল:


বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) বাসভবনে হামলা এবং পুলিশের কাজে বাধা দানের ঘটনায় দায়ের করা দুটি মামলায় নয় জন আসামির জামিন মঞ্জুর করেছেন অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুম বিল্লাহ’র আদালত। জামিন পাওয়া নয় জন পুলিশের করা মামলার আসামি। এবং তিন জন ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা মামলারও আসামি।
আজ বুধবার দুপুর ১টার দিকে আসামিদের জামিন মঞ্জুর হয় বলে জানিয়েছেন আসামি পক্ষের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম ঝন্টু।

অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম ঝন্টু বলেন, ‘আমরা গ্রেপ্তার হওয়া ২১ জনের জামিন আবেদন করেছিলাম। আদালত ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা মামলায় তিন জনকে এবং কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজালাল মল্লিকের করা মামলায় নয় জনের জামিন মঞ্জুর করেছেন। তবে, এর মধ্যে তিন জন উভয় মামলার আসামি। তাঁরা জামিন পেয়েছেন। অর্থাৎ মোট নয় ব্যক্তির জামিন মঞ্জুর হয়েছে।’

‘বাকি আসামিদের জামিন আদালত নামঞ্জুর করেছেন। আমরা পরবর্তী তারিখে বাকি আসামির জামিনের আবেদন করব’, যোগ করেন অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম ঝন্টু।

আজ জামিন পেয়েছেন ইকতিয়ার উদ্দিন, সালাম মনু, আলো গাজী, মমিন উদ্দিন কালু, কবির তালুকদার, হুমায়ুন কবির হাওলাদার, ইলিয়াস, জমির উদ্দিন ও নাসির উদ্দিন। তাঁদের মধ্যে ইকতিয়ার উদ্দিন, সালাম মনু, আলো গাজী উভয় মামলা থেকে জামিন পেয়েছেন।

ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা মামলায় যে ১৩ জনের জামিন আবেদন করা হয়, তাঁরা হলেন—মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবু, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মো. ওলি উল্লাহ, রূপাতলী বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ শাহরিয়ার বাবু, মোয়াজ্জেম হোসেন ফিরোজ, লিটন ঘোষ, রাকিব, মো. শুভ হাওলাদার, শুভ সাহা, ইখতিয়ার উদ্দিন, আব্দুস সালাম মনু, সাহিনুর ইসলাম সাহিন, হারুনর রশিদ, ও আলো গাজী।

অন্যদিকে, পুলিশের করা মামলায় যে ২১ জনের জামিন আবেদন করা হয় তারা হলেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও নগর আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সাইদ আহম্মেদ মান্না, বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবু, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মো. ওলি উল্লাহ, রূপাতলী বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ শাহরিয়ার বাবু, মোয়াজ্জেম হোসেন ফিরোজ, লিটন ঘোষ, রাকিবুল ইসলাম রাকিব, মো. শুভ হাওলাদার, শুভ সাহা, ইখতিয়ার উদ্দিন, আব্দুস সালাম মনু, সাহিনুর ইসলাম সাহিন, হারুনর রশিদ, মো. মমিন উদ্দিন কালু, মো. কবির তালুকদার, মো. হুমায়ুন হাওলাদার, ইলিয়াস, জমির উদ্দীন, মো. মিরাজ গাজী, আলো গাজী ও মো. নাসির উদ্দিন শরীফ।

গত ১৮ আগস্ট রাতে বরিশাল সদর উপজেলা পরিষদ কম্পাউন্ডে ইউএনও’র বাসায় হামলার অভিযোগে এবং পুলিশের কাজে বাধার অভিযোগে ইউএনও ও পুলিশের পক্ষ থেকে ৬০২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। মামলায় ২২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) বাসভবনে হামলা এবং পুলিশের কাজে বাধা দানের ঘটনায় দায়ের করা দুটি মামলায় নয় জন আসামির জামিন মঞ্জুর করেছেন অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুম বিল্লাহ’র আদালত। জামিন পাওয়া নয় জন পুলিশের করা মামলার আসামি। এবং তিন জন ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা মামলারও আসামি।
আজ বুধবার দুপুর ১টার দিকে আসামিদের জামিন মঞ্জুর হয় বলে জানিয়েছেন আসামি পক্ষের আইনজীবী রফিকুল ইসলাম ঝন্টু।

অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম ঝন্টু বলেন, ‘আমরা গ্রেপ্তার হওয়া ২১ জনের জামিন আবেদন করেছিলাম। আদালত ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা মামলায় তিন জনকে এবং কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহজালাল মল্লিকের করা মামলায় নয় জনের জামিন মঞ্জুর করেছেন। তবে, এর মধ্যে তিন জন উভয় মামলার আসামি। তাঁরা জামিন পেয়েছেন। অর্থাৎ মোট নয় ব্যক্তির জামিন মঞ্জুর হয়েছে।’

‘বাকি আসামিদের জামিন আদালত নামঞ্জুর করেছেন। আমরা পরবর্তী তারিখে বাকি আসামির জামিনের আবেদন করব’, যোগ করেন অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম ঝন্টু।

আজ জামিন পেয়েছেন ইকতিয়ার উদ্দিন, সালাম মনু, আলো গাজী, মমিন উদ্দিন কালু, কবির তালুকদার, হুমায়ুন কবির হাওলাদার, ইলিয়াস, জমির উদ্দিন ও নাসির উদ্দিন। তাঁদের মধ্যে ইকতিয়ার উদ্দিন, সালাম মনু, আলো গাজী উভয় মামলা থেকে জামিন পেয়েছেন।

ইউএনও মুনিবুর রহমানের করা মামলায় যে ১৩ জনের জামিন আবেদন করা হয়, তাঁরা হলেন—মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবু, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মো. ওলি উল্লাহ, রূপাতলী বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ শাহরিয়ার বাবু, মোয়াজ্জেম হোসেন ফিরোজ, লিটন ঘোষ, রাকিব, মো. শুভ হাওলাদার, শুভ সাহা, ইখতিয়ার উদ্দিন, আব্দুস সালাম মনু, সাহিনুর ইসলাম সাহিন, হারুনর রশিদ, ও আলো গাজী।

অন্যদিকে, পুলিশের করা মামলায় যে ২১ জনের জামিন আবেদন করা হয় তারা হলেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর ও নগর আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সাইদ আহম্মেদ মান্না, বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবু, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মো. ওলি উল্লাহ, রূপাতলী বাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ শাহরিয়ার বাবু, মোয়াজ্জেম হোসেন ফিরোজ, লিটন ঘোষ, রাকিবুল ইসলাম রাকিব, মো. শুভ হাওলাদার, শুভ সাহা, ইখতিয়ার উদ্দিন, আব্দুস সালাম মনু, সাহিনুর ইসলাম সাহিন, হারুনর রশিদ, মো. মমিন উদ্দিন কালু, মো. কবির তালুকদার, মো. হুমায়ুন হাওলাদার, ইলিয়াস, জমির উদ্দীন, মো. মিরাজ গাজী, আলো গাজী ও মো. নাসির উদ্দিন শরীফ।

গত ১৮ আগস্ট রাতে বরিশাল সদর উপজেলা পরিষদ কম্পাউন্ডে ইউএনও’র বাসায় হামলার অভিযোগে এবং পুলিশের কাজে বাধার অভিযোগে ইউএনও ও পুলিশের পক্ষ থেকে ৬০২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। মামলায় ২২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *