সিএনএস ডেস্ক:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যা মামলায় ফাঁসির দন্ডাদেশ পাওয়া পলাতক পাঁচ খুনির মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে এ এম রাশেদ চৌধুরী ও কানাডায় নুর চৌধুরীর অবস্থান নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর। তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার কাজটি প্রক্রিয়াধীন।

সূত্র জানায়, লে. কর্নেল (অব.) খন্দকার আব্দুর রশিদ লিবিয়া ও বেলজিয়ামে অবস্থান করছেন। বেশিরভাগ সময় লিবিয়াতে থেকেই ব্যবসা-বাণিজ্য করছেন। লে. কর্নেল (অব.) শরীফুল হক ডালিম পাকিস্তানে অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে।

আরেক খুনি রিসালদার মোসলেহ উদ্দিন ভারতে ছিলেন বলে তথ্য ছিল। তবে এ ব্যাপারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধুর খুনি রিসালদার মোসলেহ উদ্দিন ভারতে গ্রেফতারের ব্যাপারে আমাদের কাছে পজিটিভ কোন নিউজ নেই।

গ্রেফতার হলে এতোদিনে তো তাকে দেশে ফেরত আনা যেত। এদিকে ইন্টারপোলের বাংলাদেশ শাখা অফিসের প্রধান (এনসিবি) ও পুলিশের সহকারী উপ-মহাপরিদর্শক (এআইজি) মহিউল ইসলাম বলেন, গণমাধ্যমের মাধ্যমেই আমরা বঙ্গবন্ধুর খুনি মোসলেহ উদ্দিনের গ্রেফতারের বিষয়টি জেনেছিলাম। এরপর আমরা নিশ্চিত হওয়ার জন্য ভারতীয় এনসিবি’র কাছে চিঠি দিয়েছিলাম। কিন্ত গত চার মাসেও আমরা ওই চিঠির কোন জবাব পাইনি।

২০১০ সালের ২৮ জানুয়ারি দিবাগত রাতে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত ১২ আসামির মধ্যে কারাবন্দি পাঁচ আসামির ফাঁসি কার্যকর হয়। তারা হলেন- সৈয়দ ফারুক রহমান, সুলতান শাহরিয়ার রশিদ খান, মুহিউদ্দিন আহমেদ, বজলুল হুদা ও এ কে এম মহিউদ্দিন আহমেদ। মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত অন্য ছয় আসামি পলাতক ছিলেন। তাদের মধ্যে আবদুল মাজেদকে চলতি বছরের ১২ এপ্রিল ফাঁসির রায় কার্যকর হয়।

আরেক খুনি আজিজ পাশা ২০০১ সালে জিম্বাবুয়েতে মারা যান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *