নিজস্ব প্রতিবেদক:
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের জনগণের স্বাধীনতার জন্য যে সংগ্রাম ও ত্যাগ স্বীকার করেছেন, সেজন্য ৪৫ বছর পরও সারাবিশ্ব তাকে স্মরণ করছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সাংস্কৃতিক সংস্থার (ইউনেস্কো) মহাপরিচালক আন্দ্রে আজলি।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে তিনি এ মন্তব্য করেন। শনিবার (১৫ আগস্ট) বাংলাদেশ ন্যাশনাল কমিশন ফর ইউনেস্কোর মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির কাছে এই বাণী দেন ইউনেস্কো প্রধান।

পদাধিকার বলে শিক্ষামন্ত্রী বাংলাদেশ ন্যাশনাল কমিশন ফর ইউনেস্কোর চেয়ারপারসন এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন ওই কমিশনের মহাসচিব।

বাণীতে ইউনেস্কো মহাপরিচালক বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান তার দেশের জনগণের স্বাধীনতার জন্য যে সংগ্রাম ও ত্যাগ স্বীকার করেছেন, সেজন্য ৪৫ বছর পরও সারাবিশ্ব তাকে স্মরণ করছে। পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু তার ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণে ন্যায়ভিত্তিক ও গণতান্ত্রিক সমাজের যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তা ইউনেস্কো শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে এবং ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেস্কো মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টারে অন্তর্ভুক্ত করেছে।

আজলি বলেন, এই বছর ইউনেস্কো বাংলাদেশের সাথে যৌথভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছে। এর মাধ্যমে শেখ মুজিবুর রহমান সকল জাতি, ধর্ম, ভাষা ও সংস্কৃতির মানুষের মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধা এবং ন্যায়সঙ্গত পৃথিবীর যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তা বিশ্ববাসীকে স্মরণ করিয়ে দেয়ার একটি সুযোগ পেল ইউনেস্কো।

সংস্থার মহাপরিচালক বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান একটি উন্নত বিশ্ব গঠন করতে সকল জাতির মধ্যে সৌহার্দ্য ও ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কে বিশ্বাস করতেন। ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু জাতিসংঘে অসম্ভব ও অনতিক্রম্য বাধা অতিক্রম করার মানুষের যে অদম্য স্পৃহা, তার ওপর বিশ্বাসের কথা পুনর্ব্যক্ত করেছিলেন। আমাদের সবার উচিত সে অনুযায়ী কাজ করা।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *