ফুটন্ত পানি পুরোপুরি ধ্বংস করতে পারে করোনাভাইরাসকে

অনলাইন ডেস্ক:
সামনে আসলো রাশিয়ার বিজ্ঞানীদের একটি চাঞ্চল্যকর গবেষণা। সেখানে জানানো হয়েছে, করোনাভাইরাস ধ্বংস করতে পারে ফুটন্ত পানি। সংবাদ সংস্থার প্রতিবেদনের রিপোর্ট অনুসারে স্টেট রিসার্চ সেন্টার অফ ভাইরোলজি অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি ভেক্টর এই গবেষণা করেছে। তাদের বক্তব্য ফুটন্ত পানি করোনাভাইরাসকে তৎক্ষণাৎ পুরোপুরি ধ্বংস করতে পারে।

ওই গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি ২৪ ঘণ্টায় করোনারভাইরাস মেরে ফেলতে সক্ষম ও ৭২ ঘণ্টায় তা ৯৯.৯ শতাংশ ভাইরাস মেরে ফেলতে পারে। অন্যদিকে ফুটন্ত পানি তৎক্ষণাৎ ভাইরাসকে মেরে ফেলতে পারে বলে দাবি করছে এই গবেষণা। রাশিয়ান ফেডারাল সার্ভিস ফর হিউম্যান ওয়েলবিংয়ের এই গবেষণা ইঙ্গিত দিচ্ছে, করোনাভাইরাসের স্থিতিস্থাপকতা পানির তাপমাত্রার ওপর নির্ভর করে।

ওই গবেষণায় আরো বলা হয়েছে সমুদ্রের পানি বা মিষ্টি পানিতে এই ভাইরাস বৃদ্ধি পায় না। তবে বলা হয়েছে করোনাভাইরাস কিছু পরিস্থিতিতে পানিতে বাস করতে পারে। সমীক্ষায় দেখা গেছে, স্টেইনলেস স্টিল, লিনোলিয়াম, গ্লাস, প্লাস্টিকের পৃষ্ঠদেশে এই ভাইরাস ৪৮ ঘণ্টা থাকতে পারে।

গবেষণায় বলা হয়েছে, সাধারণ বাড়ির নানান জীবাণুনাশক পদার্থগুলো এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর। সমীক্ষায় দেখা গেছে, ইথাইল এবং আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহলের ৩০ শতাংশ মাত্র হাফ মিনিটে এক মিলিয়ন ভাইরাস মারতে পারে।

উল্লেখ্য, ব্লুমবার্গ রিপোর্ট অনুসারে রাশিয়া পরিকল্পনা করেছে অগাস্টের ১০-১২ তারিখে করোনা ভ্যাকসিন নথিভূক্ত করবে। ওই রিপোর্ট জানাচ্ছে, মস্কোর গামালেয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ ইপিডেমিওলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজির তৈরি ভ্যাকসিন এবার জনগণের ব্যবহারের জন্য অনুমোদন পাবে নথিভুক্তকরণের ৩ থেকে ৭ দিনের মধ্যে।

এটা হল সেই ভ্যাকসিন যেটা এই মাসের গোড়ায় মানুষের উপর সফলভাবে প্রয়োগ হয়েছে বলে রিপোর্ট বের হয়। জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহে এই ভ্যাকসিন মানুষের ওপর প্রয়োগের প্রথম ধাপ করা হয়েছিল। তারপর দ্বিতীয় ধাপের কাজ শুরু হয় ১৩ জুলাই থেকে। একটা ভ্যাকসিন জনগণের কাছে ছাড়া হয় না যতদিন না তিনটি ধাপে মানুষের ওপর তা প্রয়োগ করা হচ্ছে। তবে এক একটা ধাপ কয়েক মাস ধরে কাজ চলে।

রিপোর্ট অনুসারে সে ক্ষেত্রে রাশিয়া পরিকল্পনা করেছে দ্বিতীয় ধাপের কাজ আগে করার এবং তৃতীয় ধাপের কাজ ছাড়াই ভ্যাকসিন ব্যবহারের অনুমোদন দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *