অনলাইন ডেস্ক :

সোমবার (২১ জুন) সকাল থেকে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। রাজধানীর তিনটি কেন্দ্রে এ টিকা দেওয়া হচ্ছে।

এদিন সকাল সাড়ে ৯টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) কনভেনশন হলে করোনা ভাইরাসের প্রথম ডোজ হিসেবে ফাইজারের টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ। একই সময়ে মহাখালীর শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতাল ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ফাইজারের টিকা দেওয়া শুরু হয়।

এর আগে রোববার (২০ জুন) দুপুরে করোনা বিষয়ক নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের লাইন ডিরেক্টর (এমএসসিএন্ডএএইচ) ও করোনা টিকা ব্যবস্থাপনা টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য সচিব ডা. মো. শামসুল হক জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতাল ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে ফাইজারের টিকা দেওয়া হবে। পর্যায়ক্রমে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে এ টিকা দেওয়া হবে।

জানা যায়, গত ৩১ মে রাত ১১টা ২২ মিনিটে ফাইজারের ১ লাখ ৬২০ ডোজ টিকা এমিরেটস এয়ারলাইনসের ইকে-৫৮২ ফ্লাইটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। করোনার টিকা সংগ্রহ ও বিতরণের বৈশ্বিক উদ্যোগে কোভ্যাক্স থেকে বাংলাদেশ প্রাথমিকভাবে এ টিকা পেল।

শামসুল হক বলেন, ফাইজার-বায়োএনটেকের উদ্ভাবিত করোনা ভাইরাসের এ টিকা মাইনাস ৯০ থেকে ৬০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করতে হয়।

এ তাপমাত্রার সংরক্ষণপাত্র দেশে খুব কম আছে। তাই এ টিকা ঢাকা শহরের মানুষকে দেওয়া হবে। ইতোমধ্যে নিবন্ধন করেছেন এমন ব্যক্তিরা এ টিকা পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, এ টিকার প্রথম ডোজের সঙ্গে দ্বিতীয় ডোজের ব্যবধান নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ সপ্তাহ বা ২৮ দিন। এছাড়া টিকা কেন্দ্রের অন্যান্য ব্যবস্থাপনা আগের মতোই প্রস্তুত করার নির্দেশনা দেওয়া আছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোলরুমের তথ্য অনুসারে, গত ২৭ জানুয়ারি দেশে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করে। প্রথম দিন টিকা দেওয়া হয় ২৬ জনকে। আর ৭ ফেব্রুয়ারি সারাদেশে টিকা কার্যক্রম শুরু হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *