নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রবাসীদের জন্য কমানো হয়েছে করোনা পরীক্ষার ফি। সাড়ে ৩ হাজার থেকে কমিয়ে এ ফি এখন দেড় হাজার করেছে সরকার।

সোমবার (২৪ আগস্ট) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে করোনা রোধে তাইওয়ান সরকারের পক্ষ থেকে পাঠানো স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী গ্রহণ অনুষ্ঠান শেষে এ কথা জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

‘পিসিআর টেস্টের জন্য আমরা যে ফি নির্ধারণ করেছিলাম তা কমিয়ে দেয়া হয়েছে’ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘২০০ টাকার টেস্ট ১০০ টাকা, ঘরে বসে টেস্ট ৫০০ থেকে ৩০০ টাকা করা হয়েছে। যারা টেস্ট করে বিদেশে যায় তাদের পরীক্ষা সাড়ে তিন হাজার থেকে কমিয়ে এক হাজার ৫০০ টাকা করে দেয়া হয়েছে।’

করোনার তিন ধরনের টেস্ট হয় জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘একটা হলো পিসিআর টেস্ট, যেটা আমরা করে যাচ্ছি। দুটি টেস্ট- একটি অ্যান্টিজেন এবং অপরটি র‌্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্ট।’

তিনি বলেন, ‘একটা হলো পিসিআর টেস্ট, যেটা আমরা করে যাচ্ছি। একটা ল্যাব থেকে এখন প্রায় ৮৮টি ল্যাবে পিসিআর টেস্ট হয়। কিন্তু টেস্টের সংখ্যা সেভাবে বাড়ে না, কারণ কিছু লোকের অনীহা দেখা দিয়েছে।’

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দীন, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আবদুল মান্নান, ঢাকায় তাইওয়ান ট্রেড সেন্টারের পরিচালক তিমথি ডব্লিড. ডি. সো, ম্যানেজার রঞ্জন চক্রবর্তী প্রমুখ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *