নিজস্ব প্রতিবেদক:

২০২১ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা পেছাতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।
আজ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিয়ে ভার্চ্যুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী একথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আগামী বছর যাদের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা, তাদের জন্য ‘তিন মাসে শেষ করা যায়’- এমন একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে, তার আলোকে তাদের তিন মাস ক্লাস করিয়ে তাদের পরীক্ষা নেয়া হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের আলোকে আমরা তাদের তিন মাস ক্লাস করাতে চাই। সে কারণে হয়ত এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা ২/১ মাস পিছিয়ে যাবে।’

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে জানিয়ে দীপু মনি জানান, করোনার কারণে সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে প্রথম থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত লটারির মাধ্যমে নতুন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। শিক্ষার্থী ভর্তিতে এ বছর ক্যাচমেন্ট এরিয়া (বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকা) ৪০ শতাংশের পরিবর্তে ৫০ শতাংশ করা হবে। ক্লাস্টারভিত্তিক ভর্তির ক্ষেত্রে ঢাকার শিক্ষার্থীরা লটারিতে পাঁচটি স্কুল নির্বাচন করতে পারবে।

তিনি বলেন, ‘প্রতিবারের মতো এবার ভর্তি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। এজন্য বিকল্প পদ্ধতি নিয়ে ভেবেছি। অবশেষে তিনটি বিকল্প প্রক্রিয়া নিয়ে ভেবেছিলাম। এর মধ্যে স্বাভাবিক নিয়মে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার কথা ভাবলেও করোনার এই সময়ে এটি করতে চাইনি। এমসিকিউ পদ্ধতির কথাও চিন্তা করেছি, তাতেও ঝুঁকি থাকে। দ্বিতীয়- অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষা। তবে সব ভর্তিচ্ছুদের পক্ষে এটা সম্ভব হবে না। তাই লটারির মাধ্যমে স্কুলে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেই।’

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘আগামী ৭ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রথম থেকে নবম শ্রেণিতে ভর্তির পুরো প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানিয়ে দেয়া হবে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহাবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক গোলাম ফারুক, বিভিন্ন শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *