নিজস্ব প্রতিবেদক:

এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদারের (পি কে হালদার) স্থাবর সম্পদ ক্রোকের আদেশ দিয়েছেন আদালত। সুবিধাজনক সময়ে কোটি কোটি টাকার এসব সম্পদ জব্দ করতে দুনীতি দমন কমিশনকে আদেশ দিয়েছেন বিচারিক আদালত।

আজ মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েসের আদালত এই আদেশ দেন।

দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-এর আইনজীবী মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

হাজার কোটি টাকা বিদেশী অর্থপাচারকারী পিকে হালদারের সম্পদ জব্দের এ আদেশ দুদকের বিজয় বলে জানান দুদকের এই আইনজীবী।

এর আগে, ধানমন্ডির দুটি ফ্ল্যাটসহ পিকে হালদারের স্থাবর সম্পদ ক্রোকের আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদক উপপরিচালক মো. সালাউদ্দিন। শুনানি শেষে  স্থাবর সম্পদ ক্রোকের আদেশ দেন আদালত।

ক্রোক করা ফ্ল্যাট দুটির একটি হচ্ছে রাজধানীর সাতমসজিদ রোডের ১০/এ রোডের ৩৯ নম্বর বাড়ির ১২/ই ফ্ল্যাট। অন্যটি ধানমন্ডির ৬ নং সড়কের ১১ কাঠার ওপর নির্মিত বাড়ির ৮ম তলার ২ হাজার ৬০৩ বর্গফুটের ফ্ল্যাট। এছাড়া আদালতের নির্দেশে যে কোন মুহুর্তে জব্দ করা হবে পিকে হালদারের নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে থাকা প্রায় ৬ একর জমিও।

প্রসঙ্গত, পি কে হালদার পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আইএলএফএসএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন। গ্রাহকদের অভিযোগের মুখে বছরের শুরুতেই পি কে হালদারের বিদেশ পালান। গত ৮ জানুয়ারি ২৭৪ কোটি ৯১ লাখ ৫৫ হাজার ২৫৫ টাকার অবৈধ সম্পদের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

বিদেশে পলাতক পিকে হালদারের একাধিক বান্ধবীর নামে ৭০-৮০ টি অ্যাকাউন্টে অর্থ পাচারের প্রমাণ পেয়েছে দুদক। তার বিরুদ্ধে অর্থ পাচার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলাও করা হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *