নিজস্ব প্রতিবেদক,রাজশাহী:

টেকনাফের শুক্কুর মিয়া (৩৫) পাকস্থলীতে করে ইয়াবা নিয়ে যাচ্ছিলেন রাজশাহী, পথিমধ্যেই পুলিশের হাতে আটক পাবনায়। পুলিশের জেরায় শুক্কুর জানায়,তার পেটেই রয়েছে হাজারের বেশি ইয়াবা।

পরে পুলিশ তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় পেট থেকে ইয়াবা বের করতে, কিন্তু বিধিবাম হাসপাতালেই তার মৃত্যু হয়।

মৃত ব্যক্তির পেটে মাদক রেখেতো আর লাশ বুজিয়ে দেয়া যায়না, নিরুপায় হয়েই ডাক্তাররা মৃত ব্যক্তির পেট কেটেই বের করলেন এক হাজার পাঁচশত পঞ্চাশ পিস ইয়াবা।

গতকাল সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে একজন ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ময়নাতদন্তের সময় তার পাকস্থলী থেকে ৩১টি প্যাকেটে থাকা ইয়াবাগুলো উদ্ধার করা হয়।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর পাবনা হাসপাতাল রোড এলাকা থেকে আরও তিনজনের সঙ্গে শুক্কুরকে আটক করে গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের পর তার পেটের মধ্যে ৩১ প্যাকেট ইয়াবা রয়েছে বলে জানায় শুক্কুর।

শুক্কুর কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাজারপাড়ার মোক্তার আহমেদের ছেলে। ময়নাতদন্ত শেষে তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে জানায় পুলিশ।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *