মাসুদুর রহমান,যশোর:

যশোরে পাওনা টাকা চাওয়ায় এক গাড়ি চালককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এসময় নিহতের ছেলে বাধা দিতে গেলে তাকেও কুপিয়ে মারাত্মক জখম করা হয়েছে। নিহতের নাম আব্দুল কুদ্দুস (৪৬) তার ছেলের নাম বিপ্লব হোসেনকে (২৫)।

নিহত আব্দুল কুদ্দুস যশোর মেডিক্যাল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শরিফুল আলমের গাড়িচালক ছিলেন।

কুদ্দুস হোসেনের স্ত্রী বালিকা খাতুন জানান, তার ছেলে বিপ্লবের স্ত্রী বৃষ্টি যশোর শহরের ঢাকা রোড পুরাতন কসবা ঘোষপাড়া এলাকার সেলিম হোসেনের কাছে সোনার গহনা বিক্রি করে। যার মূল্য ৪০ হাজার টাকা। মঙ্গলবার রাতে বিপ্লব ও তার বাবা কুদ্দুস হোসেন পাওনা টাকা চাওয়ার জন্য সেলিমের বাড়িতে যান। এসময় গহনা ক্রেতা সেলিম ও পুরাতন কসবা লিচুবাগান এলাকার সম্রাট ও শফি কুদ্দুসকে কুপিয়ে জখম করে। ছেলে বিপ্লব ঠেকাতে গেলে তাকেও কুপিয়ে জখম করা হয়। স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। রাত ১০টার দিকে সার্জারি বিভাগের ডাক্তার আব্দুর রহিম মোড়ল কুদ্দুস হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন।

ডা. শরিফুল আলম খান জানান, আব্দুল কুদ্দুসকে মারাত্মকভাবে ছুরিকাহত করা হয়েছে। পেটে ও হাতে জখম হয়েছিল। যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করার পরে অবস্থার অবনতি হলে কুইন্স হাসপাতালে এক্সরের জন্যে নেওয়া হলে সেখানে মারা যায়। আব্দুল কুদ্দুস সাধারণ সাদাসিদে মানুষ ছিলেন।

কোতোয়ালি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুজ্জামান জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে আহত কুদ্দুসের মৃত্যু হয়েছে। তার মরদেহ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ছেলের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

যশোর কোতয়ালি মডেল থানার ওসি (অপারেশন) আবু হেনা মিলন জানান, হত্যার সঙ্গে জড়িতদের আটকে ইতি মধ্যেই পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *