নরসিংদী প্রতিনিধি:

দুই মাস ৫ দিন পলাতক থাকার পর শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এক রেস্টুরেন্ট থেকে নরসিংদীতে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের মামলার আসামি বহিষ্কৃত রায়পুরা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আসাদুল হক চৌধুরী শাকিলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদির শাকিলকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মহসিনুল কাদির জানান, ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীর সহযোগিতায় গোপন তথ্যের ভিত্তিতে মোবাইলের সূত্র ধরে শুক্রবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার বিশ্ব রোডের পাশের এক রেস্টুরেন্ট থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত: ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করা স্কুল ছাত্রীর সঙ্গে শাকিলের ৬ মাস ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। বিয়ের প্রলোভনে গত ২২ অক্টোবর সন্ধ্যায় ওই ছাত্রীকে ডেকে রায়পুরা পৌর এলাকার শ্রীরামপুরের সরকারি রাজু অডিটরিয়ামে নিয়ে যায় শাকিল। কিন্তু বিয়ে না হওয়ায় কিছুক্ষণ পর ওই ছাত্রীকে তার বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

পরবর্তীতে ওইদিনই রাত ১০টার দিকে বিয়ে করার কথা বলে আবারও বাড়ি থেকে ওই অডিটরিয়ামে ডেকে আনা হয় ছাত্রীটিকে। পরে সেখানে অডিটরিয়ামের কেয়ারটেকার সুমনের সহায়তায় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে শাকিল। এসময় স্থানীয়রা ঘটনা টের পেয়ে অডিটরিয়াম ঘেরাও করলে শাকিল ওই ছাত্রীকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও নির্যাতিতা ছাত্রীকে উদ্ধার করে। পরদিন ২৩ অক্টোবর শুক্রবার দুপুরে নির্যাতিতা ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। শুক্রবার দুপুরেই নির্যাতিতা ওই ছাত্রী বাদী হয়ে রায়পুরা থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় অডিটরিয়ামের কেয়ারটেকার সুমনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এদিকে, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে রায়পুরা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসাদুল হক চৌধুরী শাকিলকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *