রাজশাহী প্রতিনিধি:

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় পরকীয়া করে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা করেছে প্রতারিত হওয়া ৫মাসের অন্তঃসত্ত্বা নারী।

বাঘা থানায় মামলাটি করা হয়েছে গতকাল বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে। ধর্ষণে অভিযুক্ত বাদশা আলমের বাড়ি উপজেলার তুলসীপুর গ্রামে।তার পিতার নাম ইদ্রিস আলীর।

মামলার অভিযোগপত্র থেকে জানা যায়,  স্থানীয় মনিগ্রাম এলাকায় বসবাসকারী ওই গৃহবধূর স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করে অন্যত্র চলে যায়, তাকে ঠিকভাবে দেখভাল করেন না। আর এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে ওই গৃহবধূর সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে তোলে অভিযুক্ত বাদশা আলম। পরকীয়ার এক পর্ায়ে  উভয়ের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হলে ৫মাস আগে ওই গৃহবধূ অন্তঃসত্ত্বা হয়।

অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর থেকে বাদশাকে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকেন গৃহবধূ। কিন্তু বাদশা এ বিয়েতে রাজী না হওয়ায় নিরুপায় হয়ে তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ মামলা দায়ের করেন ওই গৃহবধূ।

বাঘা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, আমরা একটি অভিযোগ পেয়েছি। এতে ডাক্তারি পরীক্ষা রিপোর্ট সংযুক্ত রয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অন্তঃসত্ত্বা নরীটি বলছে ন্যায় বিচারের আসায় মানুষের ধারে ধারে গুরেও স্ত্রীর স্মৃকৃতি না পেয়ে বাধ্য হয়েই থানায় মামলা করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *