নিজস্ব প্রতিবেদক:

আজ শনিবার ৫ (ডিসেম্বর ) সকাল থেকে ঢাকার বায়ুমান স্বাভাবিকের তুলনায় সাতগুণ বেশি দূষিত ছিল বলে জানিয়েছে,বায়ুর গুণমান নিয়ন্ত্রক সংস্থা এয়ার ভিজ্যুয়াল। সংস্থাটির তথ্যানুযায়ী বর্তমানে ভারতের ‘গ্যাস চেম্বার’ হিসেবে খ্যাত দিল্লির বাতাসের চেয়েও বেশি দূষিত ঢাকার বাতাস।

সংস্থাটির দেয়া তথ্যমতে, গত চারদিন ধরে দূষিত বায়ুর তালিকায় শীর্ষে ঢাকা। যার বায়ুমান ২৭৩। তবে শনিবার দুপুর নাগাদ ঢাকাকে অতিক্রম করে দিল্লি। যার বায়ুমান ৩০০-উঠেছে। ২৩৯ স্কোর নিয়ে তিনে পাকিস্তান। ঢাকার প্রতি ঘনমিটার বাতাসে সুক্ষ ধূলিকণা ছিল ৩২৯ দশমিক ২ মাইক্রোগ্রাম।

সংস্থাটি বিশ্বের শহরগুলোতে প্রতি ঘণ্টায় বায়ুর মান নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে থাকেন।

একিউআই সূচকে ৫০ এর নিচে স্কোর থাকার অর্থ হলো বাতাসের মান ভালো। সূচকে ৫১ থেকে ১০০ স্কোরের মধ্যে থাকলে বাতাসের মান গ্রহণযোগ্য বলে ধরে নেয়া হয়। একিউআই স্কোর ১০১ থেকে ১৫০ হলে সাধারণ নগরবাসী বিশেষ করে শিশু, বয়স্ক ও অসুস্থ রোগীরা স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়তে পারেন। একিউআই স্কোর ১৫১ থেকে ২০০ হলে নগরবাসীর প্রত্যেকের স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব পড়তে পারে, বিশেষ করে শিশু, বৃদ্ধ ও রোগীরা স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়তে পারেন।

কেননা, এতে করে পরিবেশের ভয়াবহতা থেকে শুরু করে মানুষের শ্বাস প্রক্রিয়া আক্রান্ত করে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়। বিশ্বের দূষিত শহরগুলোতে মানুষের আয়ু হ্রাস, মৃত্যু ও স্বাস্থ্যঝুঁকির অন্যতম কারণ এ ক্ষতিকর ধূলিকণা।

জনববহুল ঢাকা দীর্ঘদিন ধরেই দূষিত বাতাস নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে। মূলত নির্মাণ কাজের নিয়ন্ত্রণহীন ধুলা, যানবাহনের ধোঁয়া, ইটভাটা প্রভূতি কারণে রাজধানীতে দূষণের মাত্রা চূড়ান্ত পর্যায়ের পৌঁছেছে।

ঢাকার বায়ুদূষণের প্রধান কারণ হিসেবে এই শহরের আশেপাশে অবস্থিত ইটভাটাগুলোকে চিহ্নিত করেছে বিশ্বব্যাংক ও পরিবেশ অধিদপ্তর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *