নিজস্ব প্রতিবেদক:
অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখেই ট্রেন চলাচল অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেছেন, রেলের ভাড়া বাড়ানোরও কোনো পরিকল্পনা তাদের নেই। সোমবার রেলভবনে লাগেজ ভ্যান ক্রয়সংক্রান্ত চুক্তি সই অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন রেলমন্ত্রী।

রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বলেন, ‘করোনাভাইরাস সংক্রমণ ওপরের দিকে যাবে না নিচের দিকে নামবে, তা এখনো নিশ্চিত নই। এ জন্য বাসে আসন পূর্ণ করে আগের ভাড়ায় চলাচলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও আমরা তেমন কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করিনি।

রেলের ভাড়া বৃদ্ধির আলোচনা সম্পর্কে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, এখন পর্যন্ত রেলের ভাড়া বৃদ্ধির কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। তবে ভবিষ্যতের জন্য গবেষণা চলছে। যখন মানুষের সামর্থ্য বাড়বে, তখন ভাড়া বৃদ্ধি করা যায় কি না, সেটা নিয়ে দেড় বছর আগে একটি কমিটি করা হয়েছিল।

সম্প্রতি কমিটি একটি প্রতিবেদন দিয়েছে। এর মানে এই নয় যে রেলের ভাড়া বৃদ্ধি হচ্ছে। বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে যে প্রশ্নগুলো তোলা হচ্ছে, সেটি কিন্তু সঠিক নয়। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনার জন্য অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে চালাতে বলেছেন। মালামাল পরিবহনের মাধ্যমে আয় বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে গত মার্চের শেষের দিকে যাত্রীবাহী সব ট্রেনের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ৩১ মে থেকে সীমিত আকারে ট্রেন চালু হয়। তখন থেকেই অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে ট্রেন চলছে। পর্যায়ক্রমে ট্রেনের সংখ্যা বাড়ছে। ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ১৩৪টি ট্রেন চলবে। ওই দিন সব আন্তনগর ট্রেনের চলাচল শুরু হবে। তবে মেইল, লোকাল, কমিউটার অনেক ট্রেনের যাতায়াত চালুর এখনো ঘোষণা আসেনি।

রেলে যাত্রীবাহী ও মালবাহী মিলে ৩৫৫টি ট্রেন চলাচল করে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *