আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে তার ঘনিষ্ঠজনদের মধ্যেও এ রোগের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। সবশেষ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন হোয়াইট হাউজের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা স্টিফেন মিলার ও কোস্ট গার্ডের ভাইস কমান্ড্যান্ট চার্লস রে।

গত পাঁচ দিন ধরে আইসোলেশনে ছিলেন ট্রাম্পের বক্তৃতা লেখক মিলার। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার তিনি করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এদিকে কোস্ট গার্ড কর্মকর্তা অ্যাডমিরাল চার্লস রে করোনা পজিটিভ হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ জেনারেল মার্ক মিলিসহ কয়েকজন সামরিক কর্মকর্তা কোয়ারেন্টিনে গেছেন। সতর্কতার অংশ হিসেবে আরও কিছু কর্মকর্তা আইসোলেশনে আছেন।

কোস্ট গার্ডের ভাইস কমান্ড্যান্ট চার্লস রের শরীরে সামান্য উপসর্গ রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সদর দফতর পেন্টাগন জানিয়েছে, গত সপ্তাহে চার্লসের সঙ্গে বৈঠক করা কর্মকর্তারা কোয়ারেন্টিনে আছেন। তাদের কারো শরীরে করোনা ধরা পড়েনি; লক্ষণও নেই।

কোস্টগার্ডের এ কর্মকর্তা কীভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তা জানা যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বার্তা সংস্থা এপিকে জানান, চার্লস প্রায় ১০ দিন আগে হোয়াইট হাউজে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন। তবে তিনি সেখানে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন কি না, তা নিশ্চিত নয়।

৩ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগে প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প, তার স্ত্রী মেলানিয়াসহ হোয়াইট হাউজের কয়েক জন কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত হলেন।

করোনায় আক্রান্ত ট্রাম্প ভর্তি হয়েছিলেন ওয়াশিংটন ডিসির একটি হাসপাতালে। সেখানে তিন দিন থেকেই তিনি হোয়াইট হাউজে চলে যান। নিজ বাসভবন ও দফতরের বারান্দায় দাঁড়িয়েই মাস্ক খুলে ফেলেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট।

সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *