নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে টিকার দাবিতে বিক্ষোভ করছেন প্রবাসীরা। শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে টিকার দাবিতে তারা স্লোগান দিতে থাকেন। এ সময় প্রবাসীরা হাসপাতালের সামনের সড়ক অবরোধ করেন। এতে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

বিক্ষোভের এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়। পরে টিকা কবে পাবেন সে বিষয়ে কথা বলতে বিক্ষোভকারীদের পক্ষ থেকে ৫ জন ও পুলিশ কর্মকর্তারা হাসপাতালের পরিচালকের সঙ্গে ১ ঘণ্টা আলোচনা করেন। এরপরও প্রবাসীরা তাদের বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন।

প্রবাসীরা জানান, মেসেজ আসার পর আমরা টিকা নিতে এসেছি। কিন্তু এখানে মডার্না ও ফাইজারের প্রথম ডোজ নেই। এদিকে ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে, এখন আমরা কী করব। আমরা অনেক টাকা খরচ করে টিকার জন্য গ্রাম থেকে এসেছি।

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. খলিলুর রহমান প্রবাসীদের জানিয়েছেন, আমাদের কাছে ফাইজার ও মডার্নার টিকা নেই। এখন সিনোফার্মের টিকা চলছে। টিকা না দিলে আমরা আপনাদের কীভাবে দেবো। আপনারা সিনোফার্ম নিলে এখনই দিতে পারব। আমাদের কাছে শুধুমাত্র দ্বিতীয় ডোজের জন্য মডার্না আছে।

এদিকে পুলিশ বলছে, পরিচালকের কথা আমরা প্রবাসীদের বোঝানোর চেষ্টা করছি। কিন্তু তারা কোনোভাবেই মানছেন না। তারা হাসপাতালে বিক্ষোভ করছেন। সরকার টিকা না দিলে হাসপাতাল কীভাবে দেবে। এখানে তো আর টিকা তৈরি হয় না। তাদের দাবি ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। তারাও নিরুপায় হয়েই বিক্ষোভ করছে।

পরিচালকের সঙ্গে যে ৫ জন প্রবাসী কথা বলেছেন তাদের সঙ্গে কথা হয় সাংবাদিকদের। এদের মধ্যে কুমিল্লা থেকে টিকা নিতে আসা একজন বলেন, আমরা ম্যাসেজ পেয়েছি। তারা বলছে সিনোফার্ম নিতে। কিন্তু এই টিকা নিলে সৌদিতে প্রবেশ করতে দেবে না। আমাদের মডার্না বা ফাইজারের টিকা নিতে হবে।

তিনি বলেন, হাসপাতালের পরিচালক আমাদের জানিয়েছেন, এখানে ফাইজার এবং মডার্নার টিকা নেই। তিনি বিষয়গুলো আমাদের জানিয়েছেন। এক ঘণ্টা আলোচনা শেষে বিষয়টি সবাইকে বোঝানোর চেষ্টা করছি, কিন্তু কেউ বিশ্বাস করছে না। হাসপাতালের ভেতরে এখনো বিক্ষোভ চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *