জেলা প্রতিনিধি,ঝালকাঠি:
ঝালকাঠিতে জোয়ারের পানি বৃদ্ধি ও ভারী বৃষ্টির ফলে দুই শতাধিক মাছের ঘের ও সহস্রাধিক পুকুর তলিয়ে গেছে। এতে অধিকাংশ ঘের ও পুকুরের মাছ বের হয়ে গেছে। ফলে ঘের ও পুকুর মালিকরা বড় ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

স্থানীয়ভাবে ১০ কোটি টাকারও বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঘের ও পুকুর মালিকরা। তবে জেলা মৎস্য বিভাগ থেকে প্রাথমিক পর্যায়ে একশ মাছের ঘের ও ছয়শ পুকুরে চাষ করা মাছের ক্ষতির কথা উল্লেখ করে একটি তালিকা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে বলে জানা গেছে।

রোববার (২৩ আগস্ট) সরেজমিনে ঝালকাঠি সদর উপজেলার বিনয়কাঠি ইউনিয়নের বালকদিয়া গ্রামে দেখা গেছে, সেখানকার সব ঘের পানিতে তলিয়ে মাছ বের হয়ে গেছে।

বালকদিয়া গ্রামের মাছের ঘের মালিক শফিকুল ইসলাম বলেন, গত ১০ বছর ধরে মাছের ঘের করে আসছি। এ বছর ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ও নিজের অর্থে ৭ একর জমিতে মাছের ঘের করেছি। আমার ঘেরে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৫ লাখ মাছ ছিল। এ বছর এখন পর্যন্ত মাছ চাষে আমার ৪০ লাখ টাকারও বেশি খরচ হয়েছে।

ঘের তলিয়ে না গেলে এখান থেকে আমি প্রায় ৫০ লাখ টাকার মাছ বিক্রি করতে পারতাম। কিন্তু পানি বাড়ার কারণে আমার ঘেরের সব মাছ বের হয়ে গেছে। মাছের ক্ষতির পাশাপাশি অন্যান্য শাক-সবজির ক্ষতি হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ঝালকাঠি জেলার মৎস কর্মকর্তা বাবুল কৃষ্ণ ওঝা বলেন, গত কয়েকদিন পানি বৃদ্ধির সাথে বৃষ্টি হওয়ায় অনেক মাছের ঘের তলিয়ে গেছে। তবে জেলা মৎস্য বিভাগ থেকে মাছচাষিদের আগেই সতর্ক করা হয়েছিল যে এ বছর বন্যা বেশি হবে। তাই অনেকে জাল টাঙিয়ে ঘের ও পুকুরের মাছ রক্ষা করতে পেরেছেন। আমরা বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিকভাবে একশ মাছের ঘের ও ছয়শ পুকুরে এক কোটি টাকার মাছের ক্ষতির কথা উল্লেখ করে মন্ত্রণালয়ে তালিকা পাঠানো হয়েছে।

সরকারিভাবে কোনো অর্থ বরাদ্দ হলে তা ক্ষতিগ্রস্ত মাছচাষিদের দেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *