চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:

গতরাত ১১টার পরে জেলা সদর হাসপাতালের সামনে  ছাত্রলীগ নেতা রিগান ও তাঁর মামা কৃষক লীগ নেতা মহসিন রেজাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা করেছে একদল দুর্বৃত্ত।

রোববার দিবাগত রাত ১১টার পরে জেলা সদর হাসপাতালের মূল গেটের সামনে কয়েকজন মুখেশধারী এ তাণ্ডব চালিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

আহত রিগান চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের প্রস্তাবিত কমিটির সহসভাপতি প্রার্থী ও মহসিন রেজা জেলা কৃষকলীগের প্রচার সম্পাদক। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর রাতেই তাদের অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উদ্দেশে পাঠানো হয়।

স্থানীয়রা জানায়, ছাত্রলীগ নেতা রিগানের বাবা আবুল আজম অসুস্থতার কারণে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি আছেন। গতকাল রাতে রিগান ও তাঁর মামা মহসিন রেজা হাসপাতালে যান। আবুল আজমকে দেখার পর তাঁরা হাসপাতাল চত্বরে দাঁড়িয়ে কথা বলছিলেন। এ সময় আট-দশজনের একটি দল মুখোশ পরা অবস্থায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদের এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন রক্তাক্ত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের সিনিয়র সার্জারি কনসালটেন্ট ডা. ওয়ালিউর রহমান নয়ন বলেন, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদের কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। তাদের শরীদের বিভিন্নস্থানে মারাক্তক ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে। তাদের ক্ষতস্থানে অসংখ্য সেলাই দিতে হয়েছে এবং শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়েছে। আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আমরা তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিতে বলা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়ার্টার) কনক কুমার দাস জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় নেওয়ার জন্য পুলিশ কাজ শুরু করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *