সোহরাব হোসেন, লালমনিরহাট:

জেলার পাটগ্রামে সাপের দংশনে মৃত এক নারীকে রাতভর ওঝা দিয়ে ঝাড়ফুঁকের পর কোন ফলাফল না পেয়ে অবশেষে মরদেহটি সমাহিত করা হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটে পাটগ্রাম পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের মির্জারকোর্ট ডাহাহাটির ডাঙ্গা গ্রামে। নিহতের নাম তছিরন নেছা (৫০)।

নিহতের স্বামী তছলিম হোসেনে জানান,ঘটনার রাতে সন্ধ্যায় বাড়ির পাশ্ববর্তী এলাকায় তাঁর মেয়ে কুচলিবাড়ি ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য শেফালী বেগমের বাড়ি থেকে পায়ে হেঁটে নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। এ সময় পথিমধ্যে তাঁর পায়ে বিষাক্ত সাপ দংশন করে।

পরবর্তিতে পরিবারের লোকজন তাঁকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। সেখান থেকে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।  চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। পরিবারে লোকজন সে রাতেই মরদেহটি বাড়িতে নিয়ে আসে।

স্থানীয় এক ওঝা তাদের জানান, সাপে কাটা ব্যক্তি চেতনাহীন ভাবে কয়েকদিন বেঁচে থাকে। এতে নিহতের পরিবারের লোকজনের মাঝে বিশ্বাস সৃষ্টি হয়। বাড়িতে মরদেহকে কাপড় দিয়ে ঘিরে রাখে। পরে ওঝা মৃত ওই নারীকে রাতভর ঝাড়ফুঁক করেন। পানি খাওয়ানোর চেষ্টাও করেন। অবস্থার কোনো উন্নতি না হলে স্থানীয় লোকজনের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। বিষয়টি বুঝতে পেরে ওঝা জানান তার চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। পরিশেষে মৃত তছিরন নেছার মরদেহটি দাফন করা হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *