কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় এসিডের শিকার হয়েছেন মা বেবি খাতুন (৫৫) ও মেয়ে মিনা খাতুন (৩০)। মেয়ের প্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে এই এসিড ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে।

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভেড়ামারা উপজেলার গোলাপনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মিনা খাতুনের চাচাত ভাই বাবর আলী বলেন, ২ বছর আগে বাহাদুরপুর গ্রামের মোক্তার আলীর ছেলে রিন্টু আলীর সাথে মিনা খাতুনের বিয়ে হয়। এর কিছুদিন পরে জানতে পারি রিন্টু আগে বিয়ে করেছে। তার ওই পক্ষে তিনটি সন্তান রয়েছে। আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারি সে নেশাগ্রস্ত। তার পর আমার বোনকে ছাড়িয়ে (তালাক) নিই।

এরপর মাঝে মধ্যেই সে ফোনে আমার বোনকে উত্যক্ত করে। তার প্রস্তাবে রাজি না হলে সে খুন-জখমের হুমকি দেয়।

বাবর আলী বলেন, রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মিনা বাথরুমে যাওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হলে পূর্বে থেকে ওৎ পেতে থাকা রিন্টু এসিড নিক্ষেপ করে। এ সময় মিনার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জ্বালা পোড়া শুরু হয়। মিনার সাথে থাকা মিনার মারও শরীরের বিভিন্ন স্থানে এসিড লাগে, যন্ত্রণায় তিনি ছটফট করতে থাকেন। হাতে থাকা টর্চ লাইটের আলোতে রিন্টুকে দেখে ফেলে চিৎকার দিলে সে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে এসিডে আহত দুজনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

বর্তমানে তারা সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ভেড়ামারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামাল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনার পর থেকে মিনা খাতুনের প্রাক্তন স্বামী রিন্টু আলী পলাতক রয়েছেন। তাকে ধরতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *