মো.আলাউদ্দিন,কুমিল্লা:

জেলার বুড়িচং উপজেলায় এক কিশোরীকে অপহরণের পর পাঁচদিন আটকে রেখে নির্যাতন, ধর্ষণ ও মাখার কেটে দেয়ার অভিযোগে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) রাতে এ ঘটনায় থানায় মামলা হলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত চারজনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতরা হল- সামিউল বাছির, হৃদয়, রানা ও লিপি আক্তার।

পুলিশ জানায়, বুড়িচং উপজেলার ভারেল্লা দক্ষিণ ইউনিয়নের দক্ষিণ শোভারামপুর নোয়াপাড়া গ্রামের কিশোরীকে ১২ অক্টোবর সকালে অপহরণ করা হয়। দয়ারামপুর গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে সামিউল ওরফে বাছির তার বন্ধু হৃদয় মিলে কিশোরীকে অপহরণ করে।

পরে কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার উত্তর দুর্গাপুর ইউনিয়নের আড়াইওরা গ্রামের ভাড়া বাসায় আটকে রেখে কিশোরীকে  ধর্ষণ করে বাছির।

পরবর্তিতে উল্টো ধর্ষক বাছিরের মা লিপি আক্তার ও অন্যরা কিশোরীকে নির্যাতন, করে মাথার চুল কেটে দেয়। এ সময় কিশোরীর স্বজনদেরও লাঞ্ছিত করা হয়।

এ ঘটনায় শনিবার রাতে বুড়িচং থানায় বাছির ও তার বন্ধু বরুড়া উপজেলার মুশকিপুর গ্রামের ছিদ্দিক মিয়ার ছেলে হৃদয়, বুড়িচংয়ের দয়ারামপুর গ্রামের মো. রানা ও বাছিরের মা লিপি আক্তারের বিরুদ্ধে মামলা করেন ভূক্তভোগী কিশোরী।

বুড়িচং থানার ওসি মোজাম্মেল হক জানান, মামলার আসামি সামিউল বাছির, হৃদয়, রানা ও লিপি আক্তারকে আমরা গ্রেফতার করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *