আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
হিমায়িত খাবার থেকে মানুষের শরীরে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর নজির নেই বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এ ব্যাপারে আতঙ্কিত না হতে সংস্থার পক্ষ থেকে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, আমদানি করা প্যাকেটজাত মুরগির মাংস ও চিংড়িতে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে বলে চীনের দাবির প্রেক্ষাপটে এমন বিবৃতি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বলা হয়েছে, রান্না করার পর করোনা ভাইরাস মরে যায়। জিনফাদি সামুদ্রিক মাছের বাজার থেকে নতুন করে বেইজিংয়ে করোনা সংক্রমণের খবর আসার পর গতজুন থেকে আমদানিকৃত খাদ্যপণ্যে করোনা পরীক্ষা চালাচ্ছে চীন।

সম্প্রতি ব্রাজিল থেকে হিমায়িত মুরগির মাংস আমদানি করে দক্ষিণ চীনের শহর শেনজেন। স্থানীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা মুরগির পাখনা নিয়ে পরীক্ষা করে। পরে চীন দাবি করে, সেগুলো পরীক্ষার পর রিপোর্টে করোনা পজিটিভ এসেছে।

চীনের আনহুই প্রদেশের উহু শহরের মেয়র জানান, ইকুয়েডর থেকে আমদানিকৃত ফ্রোজেন চিংড়িতেও করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। এমন অবস্থায় খাবার বা প্যাকেটজাত খাবার থেকে মানুষের শরীরে করোনা ছড়ায় কিনা তা নিয়ে উৎকণ্ঠা তৈরি হয়। তবে এ ধরনের আশঙ্কার কথা সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

জেনেভায় অনুষ্ঠিত এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সংস্থার জরুরি কর্মসূচিবিষয়ক প্রধান মাইক রায়ান বলেন, ‘মহামারীতে ইতোমধ্যে মানুষ যথেষ্ট আতঙ্কিত হয়ে আছে। আর নতুন করে আতঙ্ক ছড়ানোর দরকার নেই। খাবার খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। খাবার অথবা খাবারের প্যাকেট নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *