আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নভেল করোনাভাইরাস চীনেই সীমাবদ্ধ ছিল। কিন্তু এর কয়েক সপ্তাহ পর  এই ভাইরাস বিশ্বজুড়ে মহামারিতে রূপ নেয়।

শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা সৃষ্টিকারী এই ভাইরাস শ্লেষ্মা এবং লালার মাধ্যমে সংক্রমণের বিস্তার ঘটাতে পারে। চীনের হুবেই প্রদেশের উহানের একটি সামুদ্রিক খাবার বিক্রির বাজার থেকে আট মাস আগে উৎপত্তি হওয়া এই ভাইরাস এখন পর্যন্ত বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

জনসমাগম এড়াতে একেবারে প্রয়োজন না হলে বাইরে যাওয়া এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার জন্য বিশ্বজুড়ে সাধারণ মানুষকে উৎসাহ দিয়ে আসছেন বিজ্ঞানী, স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এবং সরকাররা।

যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বলছে, বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত দুই কোটির বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ৭ লাখ ৬০ হাজারের বেশি। তবে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় ১ কোটি ৩০ লাখ মানুষ।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ নভেল করোনাভাইরাসের প্রথম দফার সংক্রমণের ঢেউ সামলে আবারও দ্বিতীয় ধাক্কার মুখোমুখি হয়েছে। অন্যদিকে, এখনও বিশ্বের কয়েকটি দেশে এই ভাইরাসটি পৌঁছাতেই পারেনি।

করোনামুক্ত রয়েছে যেসব দেশ

এক. কিরিবাতি

দুই. মার্শাল দ্বীপপুঞ্জ

তিন. মাইক্রোনেশিয়া

চার. নাউরু

পাঁচ. উত্তর কোরিয়া

ছয়. পালাউ

সাত. সামোয়া

আট. সলোমন দ্বীপপুঞ্জ

নয়. টোঙ্গা

দশ. তুর্কমেনিস্তান

এগার. টুভালু

বারো. ভানুয়াতু

বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়লেও এখন পর্যন্ত রাশিয়া ছাড়া কোনও দেশই এই ভাইরাস প্রতিরোধে ভ্যাকসিন আনতে পারেনি। গত ১১ আগস্ট বিশ্বের প্রথম হিসেবে রাশিয়া করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে দেশটির বিজ্ঞানীদের তৈরি ভ্যাকসিন স্পুটনিক-৫ এর অনুমোদন দেয়।

যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, রাশিয়ার করোনা ভ্যাকসিন মূল্যায়নের জন্য এখন পর্যন্ত পর্যাপ্ত কোনও তথ্য-উপাত্ত পাওয়া যায়নি।

রাশিয়া এই ভ্যাকসিনের সুরক্ষায় আপোস ও দেশটির বিজ্ঞানীদের সক্ষমতা এবং সম্মানের বিষয়ে প্রাধান্য দিতে গিয়ে প্রথম হওয়ার এই দৌড় শেষ করেছে বলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানী ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সমালোচনা করেছেন।

রাশিয়ার গামালিয়া ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনা ভ্যাকসিনের তৃতীয় ধাপে মানবদেহে পরীক্ষাও এখনও সম্পন্ন হয়নি। তার আগে এই ভ্যাকসিন আনার ঘোষণা দেয়ায় বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভ্যাকসিন তৈরির বৈজ্ঞানিক নৈতিকতা অনুস্মরণ না করেই চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মস্কাে। তারা এই ভ্যাকসিন ব্যবহারে সতর্ক করে দিয়েছেন।

সূত্র: আলজাজিরা, রয়টার্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *