অনলাইন ডেস্ক :

দেশে একদিনের ব্যবধানে করোনাভাইরাসে মৃত্যু অর্ধেকের বেশি কমেছে। ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসটিতে মৃত্যু হয়েছে আরও ১৭ জনের। একদিন আগে এ সংখ্যা ছিল ৪০। এর আগে সবশেষ ১২ মে ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছিল। দেশে এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ১২ হাজার ৪৫৮ জন।

এদিকে মৃত্যু কমার পাশাপাশি গত কয়েকদিনের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের সংখ্যাও কমেছে। এ সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৪৯৭ জন। আর উল্লেখিত সময়ে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫৬ জন।

বুধবার বিকালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৬ হাজার ৪৩৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে শনাক্ত হন ১ হাজার ৪৯৭ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত হলেন ৭ লাখ ৯৩ হাজার ৬৯৩ জন। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৮ লাখ ৭১ হাজার ৩৫৩টি।

এদিকে নতুন ১৭ জনসহ দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৪৫৮ জনে।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ১১ জনেরই বয়স ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের ৪ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ১ জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১ জন দুইজন রয়েছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে নতুন সুস্থ হওয়াদের নিয়ে দেশে এখন পর্যন্ত সুস্থ হলেন ৭ লাখ ৭৩ হাজার ৮৬৬ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা রোগী শনাক্তের হার ৯.১১ শতাংশ। গতকাল ছিল ১০.৮ শতাংশ। এ পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩.৫২ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২.৪৬ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার ১.৫৭ শতাংশ।

দেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর খবর আসে। কয়েক মাস ধরে টানা মৃত্যু ও শনাক্ত ঊর্ধ্বগতিতে থাকার পর বছর শেষে কয়েক মাস ক্রমান্বয়ে কমতে থাকে। চলতি বছরের শুরুতে করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত অনেকটা কমে আসে। তবে গত মার্চ মাস থেকে মৃত্যু ও শনাক্ত আবার বাড়তে থাকে। বিশেষজ্ঞরা এটাকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ বলছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *