নিজস্ব প্রতিবেদক:

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে আজ ভোর ৬টা থেকে সারাদেশে কঠোর বিধিনিষেধ কার্যকর করা হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে এটিকে ‘কঠোর লকডাউন’ হিসেবেই বর্ণনা করা হচ্ছে।

বহু রাস্তা বেরিকেড বসিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সেসব রাস্তায় জরুরি সেবা সংস্থার কোন যানবাহনও যেতে পারছে না, যেতে হচ্ছে বিকল্প রাস্তায়।

সরকারের তরফ থেকে এটিকে ‘কঠোর লকডাউন’ হিসেবে বর্ণনা করা হলেও গার্মেন্টসসহ শিল্প কারখানা এবং ব্যাংক খোলা রয়েছে।

রাজধানীর মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। অকারনে কেউ রাস্তায় বের হলে করা হচ্ছে জরিমানা। পণ্য পরিবহন ছাড়া বন্ধ রয়েছে সব ধরনের যান চলাচল।

দেশের প্রায় সরকারি-বেসরকারি সকল অফিস বন্ধ রয়েছে। তবে, জরুরি সেবা কঠোর বিধি নিষেধের আওতামুক্ত রয়েছে। শর্তসাপেক্ষে খোলা আছে শিল্প কারখানা। জরুরি চলাচলের জন্য পুলিশের কাছ থেকে সংগ্রহ করতে হবে মুভমেন্ট পাস।

এদিকে, কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যে সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত ব্যাংকের লেনদেন চালু থাকবে। ব্যাংক শাখা এবং প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ প্রয়োজনে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। এদিকে, লকডাউনে বিচারিক কার্যক্রম ভার্চুয়ালি সাড়ে ৯ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। প্রধান বিচারপতির নির্দেশক্রমে আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার বদরুল আলম ভূঞা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *