জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক:

ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী সেলিমের ছেলে ওয়ার্ড কাউন্সিলর এরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী জাহিদকে অবৈধ অস্ত্র ও অবৈধ মাদক রাখার দায়ে এক বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার (২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর দেবিদাস ঘাট লেন সংলগ্ন এরফানের দাদার বাসার সামনে ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ‌্যম বিভাগের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে ছয় মাস ও অবৈধ মাদক রাখার দায়ে ছয় মাস। মোট এক বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম।

আশিক বিল্লাহ বলেন, অভিযানে দুটি পিস্তল, ৪০০ পিস ইয়াবা,বিদেশি মদ, হ্যান্ডকাপ, অনুমোদনহীন ৩৮টি ওয়াকিটকি, পাঁচটি ভিপিএস সেট, একটি ব্রিফকেস, একটি ড্রোন এবংচাইনিজ কুড়াল ও বিয়ার জব্দ করা হয়েছে।

অভিযানে অংশগ্রহণকারী র‌্যাব কর্মকর্তারা বলেন, কাউন্সিলর এরফান পুরান ঢাকা তার নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং তথ্য সংগ্রহের জন্য সম্পূর্ণ ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কের মধ্যে রেখেছেন। এজন্য তিনি অবৈধভাবে ভিপিএস ডিভাইস ব্যবহার করতেন।

এই ডিভাইস আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ট্র্যাক করতে পারেন না। সরকারি অনুমোদ ছাড়াই তিনি এই ভিপিএস নেটওয়ার্কিং সিস্টেম করেছিলেন।

এসব ডিভাইসের মাধ্যমে তিনি ঘরে বসেই পুরো পুরান ঢাকার তথ্য সংগ্রহ করতে পারতেন বলে অভিমত র‌্যাব কর্মকর্তাদের।

প্রসঙ্গত: রোববার (২৫ অক্টোবর) সন্ধ‌্যায় নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে মারধরের অভিযোগ ওঠে এরফানসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ধানমন্ডি থানায় ভুক্তভোগীর পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সেখানে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও দুজনকে আসামি করা হয়। তাদের মধ্যে এরফানের গাড়ির চালক মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তার করেছে ধানমন্ডি থানা পুলিশ।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *