আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ফ্রান্সের স্কুলে মহানবী মুহাম্মাদকে (সা:) নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের ঘটনায় এখনো উত্তাল গোটা বিশ্ব।এর মাঝে একই বিষয় নিয়ে নতুন আলোচনার জম্ম দিয়েছেন বিলজিয়ামের এক শ্রেণী শিক্ষক। এ ঘটনার পরপরি সে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে অভিযুক্ত শিক্ষককে তাৎক্ষনিক বরকাস্ত করা হয়েছে।

দেশটির ব্রাসেলর্স এলাকার একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শুক্রবার এ ঘটনাটি ঘটে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে আল জাজিরা।

বিতর্কিত ফরাসি ম্যাগাজিন শার্লি এবদো সম্প্রতি মহানবীকে যেসব ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশ করে ওই শিক্ষক তার একটি কার্টুন পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের দেখান। একই কাজ করে কীভাবে একজন ফরাসি স্কুলশিক্ষক নিহত হন তারও বর্ণনা দেন ওই শিক্ষক।

বেলজিয়ামের বরখাস্ত হওয়া স্কুলশিক্ষকের নাম প্রকাশ করা হয়নি। তবে শুক্রবার তিনি ক্লাসে ওই অবমাননাকর কার্টুন প্রদর্শন করার পর দুই থেকে তিনজন স্কুলশিক্ষার্থীর অভিভাবক স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ জানান।

এর পরই তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এখন স্কুলটিতে তার চাকরি থাকবে কিনা আদালত সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবে।

অভিযোগ দায়েরকারী শিক্ষার্থীদের পরিবারের বরাত দিয়ে দেশটির গণমাধ্যম জানিয়েছে, ওই স্কুলশিক্ষক ক্লাসে একটি ট্যাবলেট কম্পিউটার নিয়ে আসেন এবং সেখান থেকে মানবতার মুক্তির দূত বিশ্বনবী হযরত মুহম্মদ (সা.)-এর ব্যাঙ্গাত্মক কার্টুনগুলো এঁকে শিক্ষার্থীদের প্রদর্শন করেন।

সেই সঙ্গে তিনি এ কথাও বলেন, যারা এসব দেখতে চায় না, তারা যেন মাথা নিচু করে থাকে।

সম্প্রতি স্যামুয়েল প্যাটি নামে ফ্রান্সের একজন শিক্ষক তার ক্লাসের শিক্ষার্থীদের সামনে বিশ্বনবী হযরত মুহম্মদ (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করার পর এক হামলায় নিহত হন।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর ওই হত্যাকাণ্ডের জন্য তার দেশের ‘উগ্র’ মুসলমানদের দায়ী করেন।

কার্টুন এবং ইসলাম নিয়ে কুটূক্তির জেরে বিশ্ব জুড়ে ম্যাক্রাঁর বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। বয়কট করা হচ্ছে ফরাসি পণ্য। তবে শনিবার (৩১ অক্টোবর) নিজের ভোল পাল্টে হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশের কারণে মুসলিমদের ব্যথিত হওয়ার বিষয়টি অনুধাবন করেছেন বলে জানান ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *