আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

দ্বিতীয় বারের মতো সৌদি আরবের বাইরে থেকে কেউ এবার হজ পালন করতে পারবেন না বলেই মনে করা হচ্ছে।

বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারির ব্যাপক সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঘটনায় সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা ভাবছে উপসাগরীয় দেশটি।

বুধবার (৫ মে) সৌদি আরবের দুটি সূত্রের বরাতে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এমন খবর দিয়েছে।

সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে বিদেশি হাজিরা এবার পবিত্র হজ পালনে মক্কায় যেতে পারবেন না। তবে সৌদি নাগরিকদের মধ্যে যারা টিকা নিয়েছেন এবং মাসখানেক আগে সুস্থ হয়েছেন, তারা অংশ নিতে পারবেন।

সৌদি সূত্র জানায়, হজ পালনে সম্ভাব্য নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আলোচনা করা হলেও কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসা হয়নি।

ইসলামের চতুর্থ স্তম্ভ হজ সামর্থ্যবান মুসলমানদের জন্য একটি আবশ্যকীয় ইবাদত বা ধর্মীয় উপাসনা।

শারীরিক ও আর্থিকভাবে সক্ষম প্রত্যেক মুসলমান নর-নারীর জন্য জীবনে একবার হজ পালন করতে হবে।

আরবি জিলহজ মাসের ৮ থেকে ১২ তারিখ হজের জন্য নির্ধরিত সময়। হজ পালনের জন্য বর্তমান সৌদি আরবের মক্কা নগরী এবং সন্নিহিত মিনা, আরাফাত, মুযদালিফা প্রভৃতি স্থানে গমন এবং অবস্থান আবশ্যক।

হজ হল আল্লাহর কাছে মুসলমানদের আনুগত্যের প্রদর্শন।

সূত্র জানায়, বিদেশ থেকে আসা হজযাত্রীদের বরণের আগাম পরিকল্পনা বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। কেবল করোনার টিকাগ্রহণকারী ও ছয় মাস আগে করোনা থেকে সুস্থ হওয়া সৌদি নাগরিকরা হজ কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবেন।

একটি সূত্র জানায়, অংশগ্রহণকারীদের বয়সের ওপরও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হতে পারে।

তবে বিদেশ থেকে প্রাথমিকভাবে টিকা দেওয়া হজযাত্রীদের অনুমোদন দেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল। কিন্তু টিকা ধরন নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছে।

বিশেষ করে টিকার কার্যকারিতা ও করোনার নতুন ধরন মোকাবিলায় তা কতটা সফল—কর্তৃপক্ষকে এসব বিষয় নিয়েও ভাবতে হয়েছে।

মহামারি মোকাবিলায় গত বছরেরও আধুনিক ইতিহাসে প্রথমবারের মতো হজ পালনে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল সৌদি আরব। তখনও সীমিত সংখ্যক সৌদি নাগরিক ও অধিবাসীদের হজ পালনের অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *